স্টাফ রিপোর্টার, কাঁথি: ফের রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রীর মানবিক মুখের সাক্ষী থাকলেন বাসিন্দারা৷ কয়েকদিন আগেই মহিষাদলে দুর্ঘটনাগ্রস্ত এক ব্যক্তিকে নিজের কনভয়ে চাপিয়ে তমলুক হাসপাতালে পৌঁছে দিয়েছিলেন তিনি৷ এবার উদ্ধার করলেন দুর্ঘটনাগ্রস্ত দম্পতিকে৷

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার রাতে দুর্ঘটনাটি ঘটে মারিশদা থানা এলাকার দইসাহি এলাকায় নন্দকুমার-দীঘা ১১৬ বি জাতীয় সড়কে৷ কলকাতা থেকে সস্ত্রীক শচিন আম্মান্না গাড়িতে করে দীঘা যাচ্ছিলেন৷ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দইসাহির কাছে একটি বাঁকে ঘুরতে গিয়ে রাস্তা থেকে গাড়িটি জমিতে নেমে যায়৷ আর্ত চিৎকারের জন্য ওই দম্পতি সাহায্য প্রাথর্না করতে থাকেন৷
সেই সময় ওই রাস্তা দিয়ে পরিবহণ মন্ত্রীর কনভয় যাচ্ছিল৷ দম্পতির চিৎকার দেখে কনভয় থামান পরিবহণ মন্ত্রী৷ শুভেন্দুবাবু নিজে থেকেই কনভয় থামিয়ে এগিয়ে যান তাঁদের কাছে৷ শুভেন্দুর সঙ্গে থাকা পুলিশ কর্মীরা দম্পতির গাড়িটিকে জমি থেকে রাস্তায় তুলতে সাহায্য করেন৷

শচিনের কথায়, ‘‘ঝির ঝির করে বৃষ্টি পড়ছিল৷ অন্ধকারে দৃশ্যমানতাও ভাল ছিল না৷ বাঁকের মুখে ঘুরতে গিয়ে রাস্তা থেকে গাড়িটি নেমে গিয়েছিল৷ অতরাতে মন্ত্রী যদি না থাকতেন তাহলে স্ত্রীকে নিয়ে চরম বিপদে পড়তাম৷’’ মন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘‘প্রত্যেক জন প্রতিনিধি যদি এমন মানবিক হন, তাহলে সত্যি জনসাধারণ অনেক বেশি উপকৃত হতে পারেন৷’’

বস্তুত, এই প্রথম নয়৷ এর আগেও একাধিকবার পথচারী থেকে অচেনা মানুষ, যাকেই বিপদে পড়তে দেখেছেন সঙ্গে সঙ্গে সাধ্যমত তাঁর পাশে দাঁড়ানোর নজির গড়েছেন শুভেন্দু অধিকারী৷ এবিষয়ে তাঁর সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়া, ‘‘একজন মানুষ হিসেবে আরেকজনের বিপদে পাশে দাঁড়ানোটা সকলেরই কর্তব্যের মধ্যে পড়ে৷ আমি সেটুকুই করেছি৷’’