স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: তৃণমূল কংগ্রেসকে একচুলও জায়গা ছাড়তে রাজি নয় বিজেপি। দিলীপ ঘোষের “দাদাকে বলো”পর মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায় শুরু করছেন “ঘরের ছেলেকে বলো” ক্যাম্পেন। ইতিমধ্যেই সেই পোস্টারে ছেয়ে গিয়েছে বীজপুর৷

লোকসভা নির্বাচনে ৪২-৪২ টার্গেট করে ২২ আসনের আটকে গিয়েছে তৃণমূল৷ বিধানসভা নির্বাচনের আগে নিজেদের রাজনৈতিক ক্ষয় পূরণ করতে ভোট স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শেই পা ফেলছে তারা। তার পরামর্শেই রাজ্যজুড়ে দিদিকে বলো-ক্যাম্পেন করছে ঘাসফুল শিবির। এর পাল্টা হিসেবে কদিন আগেই রাজ্য বিজেপি জানিয়েছে তারা দাদাকে বলুন কর্মসূচি শুরু করছে। যেখানে চা খেতে খেতে সরাসরি সুখ দুঃখের কথা ভাগ করে নেবেন তাদের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

তৃণমূলের এই জনসংযোগের স্টাইলকে হাইজ্যাক করে এবার নিজেদের দলের শাখা-প্রশাখায় ছড়িয়ে দিতে চাইছে বিজেপি৷ “ঘরের ছেলেকে বলো” যে হোর্ডিং বীজপুরে ছেয়ে গিয়েছে সেখানে বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়ের নিজস্ব মোবাইল নম্বর ৯০৫১৩৭৭০৬৮ ও একটি মেল আইডিও দেওয়া হয়েছে। পোস্টারের পাশাপাশি এলাকায় বিলি করা হচ্ছে বিধায়কের নম্বর ও মেল আইডি দেওয়া একটি ভিজিটিং কার্ড। গেরুয়া রঙের ভিজিটিং কার্ডে শুভ্রাংশু রায়ের ছবি সমেত নম্বর ও মেল আইডি দিয়ে লেখা হয়েছে। এই নম্বরে ফোন করে স্থানীয়দের সমস্যার কথা জানাতে বলা হয়েছে৷

বীজপুর বিধায়ক শুভ্রাংশ রায় বলেন, আমি ৩৬৫ দিনই এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে থাকি। “ঘরের ছেলেকে বলো” নতুন কিছু নয়। তবে এলাকার মানুষ যাতে এই পোষ্টার দেখে আমাকে মনে করেন। তাদের সুখ-দু:খের কথা আমার সঙ্গে ভাগ করে নেন। তার জন্যই এই উদ্যোগ।”

বাবা মুকুল রায়ের বুদ্ধিতেই যে এসব হচ্ছে সেটা ভালই বুঝতে পারছেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ তাদের মতে, ছেলেকে দিয়ে কাঁচরাপাড়ার মাটিতে মুকুল রায় সরাসরি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই৷