কলকাতা: একটা নয়, তিন তিনটে বিয়ে হয়েছে শ্রাবন্তীর। তাই সম্পর্ক ভাঙার গল্প অভিনেত্রীর জীবনে নতুন নয়। প্রথম বিয়ের সন্তানও এখন অনেকটাই বড়। এরপরও ফের কালো ছায়া শ্রাবন্তীর সম্পর্কে। ইঙ্গিত অন্তত এমনটাই।

ইনস্টাগ্রামে এখনও তিনটে ছবি রয়েছে শ্রাবন্তী ও রোশনের। বছর কয়েক আগেই ধুমধাম করে বিয়ে হয় তাঁদের। ফেসবুক পেজে যদিও তিনি শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। তবে প্রোফাইল পিকচার এবং ডিপিতে জ্বলজ্বল করছে রোশন সিংয়ের সঙ্গে তাঁর বিয়ের ছবি। এর মধ্যেই টলিপাড়ায় জল্পনা, তৃতীয় বিয়েও নাকি ভাঙতে চলেছে অভিনেত্রীর।

অথচ কয়েকদিন আগেই একসঙ্গে পুজো কাটাতে দেখা গিয়েছে শ্রাবন্তী-রোশনকে। যদিও কেউই মুখ খোলেননি এ ব্যাপারে। তবে রোশনের ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক পেজে কোথাও নেই শ্রাবন্তী। এমনকি স্টেটাসে লেখা ‘সিঙ্গল’। তাই জল্পনা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। একই অবস্থা শ্রাবন্তীর ছেলে অভিমন্যু চট্টোপাধ্যায়ের প্রোফাইলেরও। মায়ের সঙ্গে ছবি রয়েছে। রোশনের সঙ্গে তোলা সব ছবি ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে।

শ্রাবন্তীর সোশ্যাল মিডিয়ার এই ছবি খুব চেনা অনুরাগীদের। কৃষ্ণ ভি রাজের সঙ্গে বিয়ে ভাঙার সময়েও একটু একটু করে এভাবেই দূরত্ব তৈরি করেছিলেন তিনি। গত বছর ধুমধাম করে সিঁদুর খেলতে দেখা গিয়েছিল শ্রাবন্তীকে। সঙ্গে ছিলেন রোশন। একগোছা সেই ছবির মধ্যে মাত্র দুটো রয়ে গিয়েছে।

প্রথমে পরিচালক রাজীব বিশ্বাসকে বিয়ে করেছিলেন শ্রাবন্তী, তাঁদেরই ছেলে ঝিনুক। দীর্ঘদিন আলাদা থাকার পর ২০১৬ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে বিচ্ছেদ হয় তাঁদের। সেই বছরই মডেল কিষাণ বিরাজের সঙ্গে আইনি বিয়ে সেরে ফেলেন শ্রাবন্তী। বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ভেঙে যায় সেই বিয়ে। এরপর ২০১৯-এর শুরু থেকেই রোশন-শ্রাবন্তীর প্রেমের গুঞ্জন দানা বাঁধতে থাকে। মার্চ মাসে শ্রাবন্তী-সোহম জুটির গুগলির প্রিমিয়ারে রোশনকে নিয়ে হাজির হন নায়িকা। ততখনই আন-অফিসিয়্যাল সিলমোহর পরে গিয়েছিল সম্পর্কে। এরপর চুপিসাড়ে পঞ্জাবে গিয়ে বিয়ের পর্ব সেরে দেন দুজনেই।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।