হায়দারাবাদ: লকডাউন অমান্য করলে দেখামাত্রই গুলি করতে হবে। এমনই হুঁশিয়ারি দিলেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও। ঘনিষ্ঠ মহলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন এছাড়া আর কোনও পথ নেই। মারণ করোনার হাত থেকে বাঁচার জন্য এটাই একমাত্র উপায় বলে মনে করেন তিনি।

ইতিমধ্যেই লাগোয়া তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। মাদুরাই হাসপাতালে চিকিৎসা চলাকালীন মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির। ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসার ও বেশ কয়েকজনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

তামিলনাড়ুতে এই প্রথম করোনা আক্রান্ত হয়ে কোনও ব্যক্তির মৃত্যু হল। তাই আর কোন রকম ঝুঁকি নিতে চাইছে না দক্ষিণের রাজ্যগুলি। শেষ পর্যন্ত দেশে করো না আক্রান্তের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। মঙ্গলবার রাতেই দেশজুড়ে লোকজনের ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

দেশজুড়ে এই লকডাউন থাকবে ২১ দিনের জন্য। মঙ্গলবার রাতে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে এমনটাই জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে লকডাউন চলাকালীন দেশজুড়ে জরুরী পরিষেবা নির্দিষ্ট সময়ে চালু থাকবে বলে জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি।

পশ্চিমবঙ্গ ক্রমেই ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে করোনা। ইতিমধ্যেই বাংলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৯। গোটা দেশে মারণ করোনা আক্রান্ত হয়ে এখনও পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে।

মঙ্গলবার দেশবাসীর উদ্দেশ্যে মোদী বলেন, ২১ দিন দেশজুড়ে লকডাউন জারি থাকবে। তিনি বলেছেন, ‘বাড়ির বাইরে লক্ষণরেখা টেনে দিন।’ দেশের প্রত্যেকটা গ্রাম, প্রত্যেকটা গলিতে জারি থাকবে লকডাউন। সতর্ক করে তিনি বলেন, অনেক উন্নত দেশও এই ভাইরাসের কাছে হার মেনেছে। অনেক প্রস্তুতি নিয়েও একে থামানো সম্ভব হয়নি। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছেন, প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলি এই সময়ে ব্যাহত হবে না।