প্রতীকি ছবি

নয়াদিল্লি: তিনি পেশায় সমাজতত্ববিদ৷ তিনি ছাত্রদের পড়ানও৷ সেই শিক্ষক ইসলামের গোড়ার কথা শেখান৷ কিন্তু কি শেখাচ্ছেন তিনি? তাঁর সেই ইসলামের পাঠ পড়ানোর একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সম্প্রতি৷ কাতারের বাসিন্দা ওই শিক্ষকের কার্যকলাপে নিন্দার ঝড় উঠেছে৷

দেখা যাচ্ছে ওই ভিডিওটি শিক্ষক তাঁর ছাত্রদের বলছে, স্ত্রীকে মারধর করবে৷ স্ত্রীকে পেটানোর নিদান দেয় খোদ ইসলাম ধর্ম৷ কীভাবে স্ত্রীকে মারধর করতে হবে, সেটাও বিস্তারিত বুঝিয়ে দিচ্ছেন ওই শিক্ষক৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে৷ তাঁর দাবি, ইসলামে স্ত্রীকে পেটানোর মান্যতা দিচ্ছে৷ স্ত্রীকে মারধর করা খুবই স্বাভাবিক ঘটনা বলেও মত তাঁর৷

আরও পড়ুন : হার্দিককে ‘গুজরাতের হিটলার’ বলে তোপ হামলাকারীর

ওই শিক্ষকের নাম আল আজিজ আলকাজরাই৷ সোশ্যাল মিডিয়াতেই তাঁকে এক নেটিজেন জিজ্ঞাসা করেন, স্ত্রীকে পেটানো কি বাধ্যতামূলক৷ উত্তরে ওই শিক্ষকের দাবি, বাধ্যতামূলক না হলেও জরুরি৷ কারণ একটি বাড়ির প্রধান হলেন সেই বাড়ির পুরুষ সদস্যরা৷ বাড়ির স্ত্রী বা মহিলাদের নিজের বশে রাখতে হবে তাদের৷ তাই প্রয়োজন মত মারধর আবশ্যক৷

ওই ভিডিওতে একটি বাচ্চা ছেলেকেও দেখা যাচ্ছে৷ যে ওই শিক্ষকের পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছে৷ স্ত্রীকে কীভাবে মারতে হবে, তা ওই বাচ্চা ছেলেটিকে মেরে বুঝিয়ে দিচ্ছেন আলকাজরাই৷ এই ছবি নিয়েও বিতর্ক দানা বেঁধেছে৷ ইতিমধ্যে ভিডিওটি ইউটিউবে ৫লক্ষ ভিউ ছাড়িয়েছে৷ তবে নেটদুনিয়ার দেওয়ালে রীতিমত নিন্দা করা হচ্ছে ওই শিক্ষকের কার্যকলাপের৷