লাহোর: পাকিস্তান সফর থেকে প্রথম সারির শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ার ঘটনা মেনে নিতে পারছেন না প্রাক্তনীরা। প্রাক্তন পাক অধিনায়ক রামিজ রাজা যেমন তিরস্কার করতে ছাড়েননি নাম প্রত্যাহার করে নেওয়া শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের, তেমনই রামিজের সুরে সুর মিলিয়ে মালিঙ্গা-ম্যাথিউজদের নিন্দায় মুখর হয়েছেন প্রাক্তন তারকা পেসার শোয়েব আখতার।

টুইটারে একাধিক পোস্টে বুধবার তাঁর হতাশা ছুঁড়ে দিয়েছেন রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস। যা দেখে একটি বিষয় পরিষ্কার, শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের এমন সিদ্ধান্তে ব্যথিত তিনি। টুইটারে আখতার লেখেন, ‘পাকিস্তান সফর থেকে যে সকল শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার নিজেদের সরিয়ে নিয়েছেন তাদের কথা ভেবে হতাশ আমি। পাকিস্তান শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে সবসময় সমর্থন জুগিয়ে এসেছে। সম্প্রতি ইস্টারে শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসবাদী হামলার পর প্রথম আন্তর্জাতিক দল হিসেবে পাকিস্তান তাদের অনুর্ধ্ব-১৯ দলকে সেদেশে পাঠিয়েছিল। ১৯৯৬ বিশ্বকাপের কথা কে ভুলতে পারে। অস্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজ যখন শ্রীলঙ্কায় তাদের দল পাঠাতে অস্বীকার করেছিল, পাকিস্তান তখন প্রীতি ম্যাচ খেলার জন্য ভারতের সঙ্গে তাদের দল পাঠিয়েছিল কলম্বোয়। আমরা সৌজন্য আশা করেছিলাম। তাদের ক্রিকেট বোর্ড এবিষয়ে সহযোগীতা করছে। ক্রিকেটারদেরও করা উচিৎ ছিল।’

উল্লেখ্য নিরোশান ডিকওয়েলা, কুশল পেরেরা, ধনঞ্জয় ডি’সিলভা, থিসারা পেরেরা, আকিলা ধনঞ্জয়া, লাসিথ মালিঙ্গা, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ, সুরঙ্গা লাকমল, দীনেশ চাঁদিমল এবং দিমুথ করুণারত্নে পাকিস্তান সফরের দল নির্বাচনের আগে নিরাপত্তার খাতিরে নিজেদেরকে সরিয়ে নেন। চোটের জন্য নির্বাচন প্রক্রিয়ার বাইরে রাখা হয় কুশল মেন্ডিসকে। নিরাপত্তাজনিত কারণে পাকিস্তানে খেলতে যাওয়ার বিষয়ে বেঁকে বসে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের পরিবারও। তবে পাকিস্তান বোর্ডের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, শ্রীলঙ্কা বোর্ড যে দলই পাঠাক না কেন, পাকিস্তান তাদের সাদরে গ্রহণ করবে।

ফলস্বরূপ, বুধবার ঘোষণা অনুযায়ী প্রায় ক্লাব স্তরের দল নিয়েই পাকিস্তানের মাটিতে পা দেবে দ্বীপ রাষ্ট্র। সেখানে ৩টি ওয়ান ডে ও ৩টি টি-২০ ম্যাচ খেলবে তাঁরা। ঘোষিত দল অনুযায়ী ওয়ান ডে সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে নেতৃত্ব দেবেন লাহিরু থিরিমানে ও টি-২০ সিরিজের জন্য দলনায়ক বেছে নেওয়া হয়েছে দাসুন শানাখা’কে। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলঙ্কার টিম বাসে জঙ্গি হামলার পর এখনও অবধি প্রথম সারির কোনও দেশের সঙ্গে পূর্ণ দৈর্ঘ্যের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ অনুষ্ঠিত হয়নি পাকিস্তানে। ২০১৭ অক্টোবরে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল সেদেশের মাটিতে একটিমাত্র টি-২০ ম্যাচ খেলেছিল। এছাড়া গত দু’বছরে আইসিসি বিশ্ব একাদশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ পাকিস্তানের মাটিতে টি-২০ সিরিজে অংশগ্রহণ করেছিল।