মু্ম্বই: আবারও ফারুক আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতিদের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন শিবসেনা সাংসদ তথা দলের মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত। ‘‘ফারুক আবদুল্লাহ বা মেহবুবা মুফতিরা যদি ভারতের সংবিধানকে চ্যালেঞ্জ জানাতে চিনের সহায়তা নেওয়ার কথা বলে, তবে তাদের গ্রেফতার করে ১০ বছরের জন্য আন্দামানে পাঠানো উচিত’’, এমনই মত শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউতের।

কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফেরানোর দাবিতে উপত্যকার বিজেপি বিরোধী দলগুলি একজোট হয়েছে। বিরোধীদের এই জোটের নেতৃত্বে রয়েছেন জম্মু কশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স সুপ্রিমো ফারুক আবদুল্লাও। উপত্যকায় ৩৭০ ধারা ফেরানোর দাবি তুলেছে পিডিপি, ন্যাশনাল কনফারেন্স-সহ জম্মু কাশ্মীরের বিজেপি বিরোধী সব রাজনৈতিক দল।

দিন কয়েক আগেই পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতির একটি মন্তব্যে বিতর্ক ছড়ায়। তিনি বলেন ‘‘যতদিন কাশ্মীরের জন্য নির্ধারিত পতাকা না ফেরানো হবে ততদিন দেশের জাতীয় পতাকাকেও সম্মান দেখানো সম্ভব নয়। আমাদের পতাকা ফিরিয়ে দেওয়া হলে ফের আমরা জাতীয় পতাকা হাতে তুলে নেব।’’

মেহবুবার এই মন্তব্য ঘিরে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। মেহবুবা মুফতিকে গ্রেফতারের দাবি তোলে জম্মু কাশ্মীর বিজেপি নেতৃত্ব। এমনকী দলেও বিদ্রোহের মুখে পড়েন মুফতি। দলনেত্রীর বক্তব্যে অসন্তোষ জানিয়ে দল ছেড়েছেন তিন বরিষ্ঠ পিডিপি নেতা।

ফারুক, মেহবুবাদের অবস্থানের বিরোধিতায় শুরু থেকেই রয়েছে শিবসেনা। আগেও ফারুক, মেহবুবাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবহি জানিয়েছেন সেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউত।

এবার আরও বেশি আক্রমণাত্মক হয়ে তিনি বলেন, ‘‘ ফারুক আবদুল্লাহ বা মেহবুবা মুফতি কেউ যদি ভারতের সংবিধানকে চ্যালেঞ্জ জানাতে চিনের সহায়তা নেওয়ার কথা বলেন তবে তাদের গ্রেফতার করে ১০ বছরের জন্য আন্দামানে পাঠানো উচিত।’’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।