মুম্বই: প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীকে ভ্রষ্টাচার নম্বর ওয়ান বলে সমালোচিত নরেন্দ্র মোদী৷ দলের একাংশ তাঁর মন্তব্যের বিরোধিতা করেছেন৷ তোপ দাগে কংগ্রেসও৷ তবে রাজীব ইস্যুতে মোদী পাশে পেয়ে যান শিবসেনাকে৷ কংগ্রেস সভাপতিতে পাল্টা তোপ দেগে শিবসেনা জানায়, রাহুল গান্ধীও তো প্রকাশ্যে মোদীকে চোর বলে থাকেন৷ তাঁর বেলায় কী কেউ আশা করেন যে প্রধানমন্ত্রী তাঁকে চায়ের আমন্ত্রণ জানাবেন?

দলের মুখপাত্র সামনায় সম্পাদকীয়তে শিবসেনা লিখেছে, ধরেই নিচ্ছি মোদী রাজীব গান্ধী সম্পর্কে যা বলেছেন তা ভুল৷ তাহলে রাহুল গান্ধী বীর সাভারকরের প্রতি যে অসম্মান দেখিয়েছেন সেটাও মারাত্মক ভুল ছিল৷ একজন স্বাধীনতা সংগ্রামী ব্রিটিশের কাছে নিজের জন্য প্রাণভিক্ষে করে ছাড়া পেয়েছিলেন বলে রাহুল যে কায়দায় বীর সাভারকারকে তাচ্ছিল্য করেছিলেন সেটা কী একজন স্বাধীনতা সংগ্রামীর অপমান নয়? আর তিনি তো নিয়ম করে মোদীকে প্রতিটা জনসভায় চোর বলে থাকেন৷ তারপরেও কি কেউ আশা করেন যে প্রধানমন্ত্রী রাহুলকে চায়ের আমন্ত্রণ জানাবেন?

শিবসেনা তাদের সম্পাদকীয়তে আরও লিখেছে, এলটিটিই’র হাতে খুন হন রাজীব গান্ধী৷ এই ঘটনা দুর্ভাগ্যজনক৷ কিন্তু রাজনীতিতে আসার আগে রাজীব দেশের জন্য কোনও অসাধারণ বা মনে রাখার মতো কাজ করেননি৷ তাই ইন্দিরা পুত্র দেশের জন্য বলিদান দিয়েছেন এটা বলা ভুল৷ ইন্দিরার মৃত্যুর পর রাজীব প্রধানমন্ত্রী হন৷ তারপর তাঁর রাজনৈতিক জীবন এবং নিজের জীবন যেভাবে শেষ হয় তা দুঃখজনক৷ কিন্তু বীর সাভারকরের ক্ষেত্রে তো তা হয়নি৷ মাত্র ১৪ বছর বয়সে তিনি ভগবানের কাছে দেশের স্বাধীনতার প্রার্থনা করেন৷ এবং জীবনের শেষ নিঃশ্বাস অবধি ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার সংকল্প নেন৷