হায়দরাবাদ: আসাদুদ্দিন ওয়াইসির বিরুদ্ধে এবার তোপ দাগলেন শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সভাপতি। তাঁকে সিরিয়ার জঙ্গি সংগঠনের প্রধানের সঙ্গে তুলনা করেন শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সভাপতি ওয়াসিম রিজভি। শনিবারেই অল ইন্ডিয়া মজলিশে-ই-ইত্তেহাদুল-মুসলিমিনের সভাপতি আসাউদ্দিন ওয়াইসিকে আইসিসের অধুনা হত আবু বকর আল বাগদাদির সঙ্গে তুলনা করেছেন রিজভি।

আসাউদ্দিন ওয়াইসির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে রিজভি জানান মুসলিমদের উসকে দিয়ে অশান্তিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করছেন ওয়াইসি। দেশের ভিতর রক্ত ঝরাতে চান বলেও অভিযোগ জানান তিনি।

এই প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘আসাদুদ্দিন ওয়াইসির সঙ্গে আইসিস প্রধান আবু বকর আল বাগদাদির সঙ্গে কোনও ফারাক নেই। বাগদাদি গুলি দিয়ে সন্ত্রাস সৃষ্টি করেছিলেন আর ওয়াইসির ‘বুলি’র মাধ্যমে সন্ত্রাসের সৃষ্টি করছেন। আমার মনে হয় ওঁকে নিষিদ্ধ করা হোক।’

এআইএমএম প্রধান ওয়াইসির অযোধ্যা মামলার রায় ঘিরে মন্তব্যের পরেই তাঁর বিরুদ্ধে তোপ দাগেন রিজভি। বিজেপির সঙ্গে রিজভির সখ্যতা অবিসংবাদিত। কিছুদিন আগেই রাম মন্দির নির্মাণের জন্য ৫১ হাজার টাকা অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন তিনি।

এর আগেও শনিবারই ওয়াইসিকে কৌতুকঅভিনেতা জাকির নায়েকের সঙ্গে তুলনা করেছিলেন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়।

অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে একাধিকবার অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন ওয়েইসি। তবে শুক্রবার জাতীয় একটি সংবাদমাধ্যামকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অযোধ্যা মামলার রায় প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি সরাসরি বলেছেন, “আমি আমার বাবরি মসজিদ ফেরৎ চাই।” ঠিক তার একদিন পরেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তোপ দেগেছেন আসাদুদ্দিনের বিরুদ্ধে।

এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, “যা কিছু ভারতের সংবিধান এবং বহুত্ববাদের বিরোধিতা করে তার বিরোধিতা আমি করবই। আমার জন্য সংবিধানই শেষ কথা। সংবিধানই আমাকে সেই অধিকার দিয়েছে যেখান থেকে শ্রদ্ধার সঙ্গে আমি সুপ্রিম কোর্টের রায়ের বিরোধিতা করতে পারি। যা সংবিধানের বিরুদ্ধ তার বিরোধিতা আমি করবই”। পাশাপাশি আসাদুদ্দিন আরও বলেন, “আমাদের যুদ্ধ একটুকরো জমির জন্য নয়। আমার আইনি অধিকার যেন অক্ষুন্ন থাকে সেইদিকে নজর রাখা। শীর্ষ আদালতও জানিয়েছে মসজিদ তৈরি করার জন্য কোন মন্দির ধ্বংস করা হয়নি। তাই আমি আমার মসজিদ ফেরত চাই।”

আসাদুদ্দিনের ‘আই ওয়ান্ট মাই মসজিদ ব্যাক’ মন্তব্যের স্পষ্ট বিরোধিতা করে বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় শনিবার জানিয়েছেন, “অল-ইন্ডিয়া-মজলিস-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন প্রেসিডেন্ট আসাদুদ্দিন ওয়েইসি ক্রমেই দ্বিতীয় জাকির নায়েকে পরিণত হচ্ছেন। উনি যদি প্রয়োজনের বেশি কথা বলেন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য দেশে আইনশৃঙ্খলা রয়েছে।”

এর আগে, অযোধ্যা মামলার রায় নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের অভিযোগ এনে আইনজীবী পবন কুমার জাহাঙ্গিরাবাড পুলিশ স্টেশনে অল-ইন্ডিয়া-মজলিস-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন প্রেসিডেন্ট আসাদুদ্দিন ওইয়াসির বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছিলেন। তিনি অভিযোগ এনেছেন তার মন্তব্যে সমাজের একশ্রেনীর মানুষকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করেছেন।

নভেম্বরের ৯ তারিখ সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যা মামলায় বিতর্কিত জমিতে মন্দির তৈরিতে শিলমোহর দিয়ে অযোধ্যার অন্য পাঁচ একর জমিতে মসজিদ তৈরির অনুমতি দিয়েছে। তবে ওই পাঁচ একর জমি নিয়ে বিভিন্ন মুসলিম নেতারা বিরোধিতার পাশাপাশি আসাদুদ্দিন ওয়েইসিও অসন্তোষ প্রকাশ করয়েছেন। প্রথমদিকে তেমন কোন মতামত না এলেও পরে তিনি একান্ত সাক্ষাৎকারে মসজিদ ফেরত চাওয়ার বিস্ফোরক এই মন্তব্য করেন তিনি।