বিশেষ প্রতিবেদন: প্রত্যাশিত ভাবেই আওয়ামি লিগের সভাপতি হলেন শেখ হাসিনা৷ সর্বসম্মতিক্রমে তিনি পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন৷ দুদিনের সম্মেলন থেকে সন্ত্রাসবাদকে রোখা ও দারিদ্র দূরীকরণের বার্তা দেওয়া হয়েছে৷ যা বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বিশেষ গুরুত্ব পাচ্ছে৷ ২০১৯ সালে জাতীয় নির্বাচন৷ সেই নির্বাচনকে সামনে রেখেই ফের জয়ের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়ার বার্তা দিয়েছেন শেখ হাসিনা৷রবিবার সভাপতির ভাষণে তিনি বলেন,  তৃতীয় দফা নির্বাচনে জয়লাভ করতে হলে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছতে হবে।

hasina-1
গত ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশের ক্ষমতায় রয়েছে আওয়ামি লিগ৷ পরপর দু বার প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন হাসিনা৷গত জাতীয় নির্বাচনকে বিরোধী বিএনপি মেনে নেয়নি৷ তাদের অভিযোগ দেশে গণতন্ত্র লুণ্ঠিত হয়েছে৷ প্রতিবাদে সারাদেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে হিংসাত্মক আন্দোলন চালিয়েছিল তারা৷ বিএনপির এই জ্বালাও-পোড়াও কর্মসূচিতে বহু মানুষের মৃত্যু হয়৷ যার কারণে দলনেত্রী ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ ফলে খালেদা বেকায়দায়৷সুযোগটি হাতছাড়া করতে নারাজ হাসিনা৷ তাই দলীয় সম্মেলন থেকে আগামী জাতীয় নির্বাচনে তৃতীয়বার জয় হাসিল করার ডাক দিলেন৷ দলের জয় যেমন চেয়েছেন তেমনই আড়ালে রেখেছেন পুত্র জয়কে৷

joyসম্মেলনের আগে থেকেই হাসিনা পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়কে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব হিসেবে তুলে ধরার দাবি উঠেছিল৷ এমনকী সম্মেলনেও সেই দাবি ওঠে৷ যদিও জয় জানিয়েছেন তিনি এখনই সংগঠনে আসতে চাননা৷ ফলে আওয়ামি লিগের নেতৃত্বে মুজিবুর রহমান পরিবারের তৃতীয় প্রজন্মের মুখ এখনই দেখা গেলনা৷ আশা ছাড়ছেন না কর্মী-সমর্থকরা৷ কেন্দ্রীয় স্তরে জয়কে দেখা না গেলেও দলের বিভিন্ন পদ এখনও ফাঁকা৷ তারই কোনও একটিতে হাসিনা পুত্রকে দেখা যাবে৷ এমনই ধারণা করা হচ্ছে৷