নয়াদিল্লি: বিজেপির বিদ্রোহী নেতা শত্রুঘ্ন সিনহা সম্ভবত কংগ্রেসের টিকিটে ভোটে দাঁড়াবেন৷ কংগ্রেসের সঙ্গে কথাবার্তা একরকম চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে৷ তিনি তাঁর পুরানো কেন্দ্র পাটনা সাহিব থেকে ভোটে লড়তে পারেন৷ শত্রুঘ্ন যদি এই কেন্দ্র থেকে ভোটে দাঁড়ান তাহলে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী হবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ৷ ১৯ মে এই কেন্দ্রে হবে ভোট৷

লোকসভা ভোটের মুখে শুরু হয়েছে শিবির বদলের খেলা৷ নিত্যদিন এক শিবির থেকে অন্য শিবিরে যোগ দিচ্ছেন রাজনৈতিক নেতারা৷ শত্রুঘ্ন সিনহাও খুব তাড়াতাড়ি কংগ্রেসে যোগ দেবেন বলে খবর৷ থাতায় কলমে এখনও তিনি বিজেপির সাংসদ৷ দল থেকে এখনও তিনি ইস্তফা দেননি৷ শত্রুঘ্নর দল বদল বিজেপি নেতাদের কাছে প্রত্যাশিত৷ কারণ অনেকদিন ধরেই বেসুরো গাইছিলেন এই বিজেপি নেতা৷

কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন একাধিকবার৷ বিরোধী শিবিরের নেতাদের সঙ্গে তাঁর ওঠাবসা নজর এড়ায়নি৷ এরপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ব্রিগেডে উপস্থিত হয়ে সরাসরি নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করেন৷ এরপরই তাঁর সঙ্গে সবরকমের যোগাযোগ বন্ধ করে দেন বিজেপি নেতারা৷ দলে একঘরে পড়ে যান শত্রুঘ্ন সিনহা৷ ফলে রাজনীতিতে টিকে থাকতে গেলেও দলবদল তাঁর পক্ষেও অনিবার্য হয়ে পড়ে৷

কোন দলে তিনি যোগ দেবেন এই নিয়েও প্রচুর জল্পনা ছড়ায়৷ শেষ অবধি কংগ্রেস শিবিরে গিয়ে ভিড় করেন৷ কংগ্রেস তাঁকে পাটনা সাহিব কেন্দ্র থেকে ভোটে লড়ার টিকিট দেবে বলে আশ্বস্ত করেছে৷ ৭২ বছর বয়সী এই অভিনেতা ২০০৯ ও ২০১৪ সালে বিজেপির টিকিটে জিতে সাংসদ হন৷ সব কথাবার্তা প্রায় চূড়ান্ত৷ এক কংগ্রেস নেতা জানান, সব কিছু ঠিক হয়ে গিয়েছে৷ শুধু তাঁর দলত্যাগ করে কংগ্রেসে আসার অপেক্ষা৷ হোলি মিটলেই হবে সেই দলবদল৷ অপরদিকে শত্রুঘ্ন জানিয়ে দেন, ২২ মার্চ ঘোষণা করবেন কোন দলের হয়ে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন৷