বার্লিন: পরমাণু যুদ্ধ কিংবা রাসায়নিক যুদ্ধের জন্য অবৈধভাবে প্রযুক্তি আমদাবি করছে পাকিস্তান। আর সাম্প্রতিককালে এই ধরনের ঘটনা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এমনটাই রিপোর্ট দিল জার্মান সরকার। জার্মানির গোয়েন্দা সংস্থার হাত ধরে এই রিপোর্ট উঠে এসেছে।

সেদেশের একাধিক সাংসদ এই সংক্রান্ত প্রশ্ন রেখেছিলেন। আর সেই প্রশ্নের জবাবেই এই তথ্য প্রকাশ্যে আনা হয়েছে। জার্মানির গোয়েন্দা সংস্থা Bundesamt für Verfassungsschutz (BfV) এই রিপোর্ট পেশ করেছিল। ২০১৮-সালের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, জার্মানি সহ অন্যান্য পাশ্চাত্য দেশ থেকে পরমাণু অস্ত্রের উপাদান সংগ্রহ করার পরিমাণ বাড়িয়ে দিয়েছে পাকিস্তান।

২০১০-থেকে এই ধরনের অবৈধ অস্ত্র সংগ্রহের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম পরিবর্তন করে জার্মানি। যার ফলে ইরানের মত দেশে এই ঘটনা কমে গিয়েছে। কিন্তু পাকিস্তানের ক্ষেত্রে ঠিক উল্টোটা। এই ঘটনা অনেকটাই বাড়িয়েছে ইসলামাবাদ। শুধু জার্মানি নয়, একাধিক দেশ থেকে প্রযুক্তি এবং উপকরন সংগ্রহের পরিমাণ বাড়িয়েছে ইসলামাবাদ। আগামিদিনেও তাদের এই চেষ্টা জারি থাকবে বলেই আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে।

বর্তমানে পাকিস্তানের হাতে আছে ১৩০-১৪০টি পরমাণু অস্ত্র। ২০২৫-এর মধ্যে সেই সংখ্যাটা ২৫০-এ নিয়ে যাওয়ার প্রবণতা আছে পাকিস্তানের। জার্মান রিপোর্টেই সেকথা বলা হয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউক্লিয়ার ইনফরমেশন প্রজেক্ট রিপোর্টে আগেই জানানো হয়েছিল যে, ২০২৫-এর মধ্যে সেই সংখ্যাটা ২৫০-এ নিয়ে যাওয়ার প্রবণতা আছে পাকিস্তানের। ওই রিপোর্ট অনুযায়ী ১৯৯৯ সালে একটি খতিয়ান পেশ করে জানিয়েছিল ২০২০ সালের মধ্যে ৬০-৮০টি পারমাণবিক অস্ত্র থাকবে পাকিস্তানের কাছে৷ সেই লক্ষ্যমাত্রার অনেক বেশি পরিমাণে অস্ত্র হাতে এসেছে পাকিস্তানের৷

গবেষক হ্যানস এম ক্রিসটেনসেন, রবার্ট এস নরিস ও জুলিয়া ডায়মণ্ড পাকিস্তানি নিউক্লিয়ার ফোর্স নামে এই রিপোর্ট তৈরি করেন৷ ফেডারেশন অফ আমেরিকান সায়েন্টিস্টের পক্ষ থেকে এই রিপোর্ট প্রকাশ করা হয় গত বছর।

রিপোর্ট বলছে দ্রুত হারে নিজেদের পারমানবিক অস্ত্র বাড়িয়ে চলেছে পাকিস্তান৷ এমনকী তারা সংরক্ষণও করছে এই পারমানবিক অস্ত্রের। এভাবে যদি চলতে থাকে তবে খুব তাড়াতাড়ি পাকিস্তানের হাতে থাকা পারমাণবিক অস্ত্রের সংখ্যা ২৫০ ছাড়িয়ে যাবে৷ স্বাভাবিকভাবেই রিপোর্ট ঘিরে যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন পাকিস্তান পারমানবিক অস্ত্রের উৎপাদন ও বৃদ্ধি ঘটাতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিচ্ছে৷ আগামী ১০ বছরে যা এই পরিমাণ আরও বাড়বে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে রিপোর্টে৷ উপগ্রহের চিত্র অনুযায়ী পাকিস্তান সেনা এবং বায়ুসেনা এই পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করার জন্য সম্ভার বাড়াচ্ছে৷ মূলত ভারতের পারমানবিক শক্তিকে ধ্বংস করতেই এই সম্ভার বাড়ানো হচ্ছে বলে সূত্রের খবর।