শ্রীনগর : কাশ্মীরের মাঠে এসে এমএসডি শুনলেন আফ্রিদি বন্দনা। রাঁচির ‘বিস্ময় বালক’ মাঠে প্রবেশ করলে অথবা ব্যাট হাতে দাঁড়ালে শুধু তাঁর নাম নিয়েই স্টেডিয়াম ফাটিয়েছে দর্শক। মেক্সিকান ওয়েভ উঠেছে ধোনি নামে। এই ভারতে দাঁড়িয়েই ধোনিকে শুনতে হল পাক ক্রিকেটার বন্দ্না।

রবিবার কাশ্মীর বারামুলা জেলার কুঞ্জারে গিয়েছিলেন স্থানীয় ক্রিকেট লিগের ম্যাচের অতিথি হিসাবে। ‘চিনার প্রিমিয়ার লিগ’-এর এই ম্যাচে এসেই দেশের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ককে শুনতে হল প্রতিবেশী দেশের ক্রিকেটারের নাম নিয়ে বন্দনা। শুধু এতেই ঘটনা থেমে থাকেনি। বেশ কয়েকজন স্থানীয় শাহিদ আফ্রিদির নাম নিয়ে চিৎকার করতে থাকেন। ধোনির উপস্থিতিতে লীগের ম্যাচ দেখতে সেখানে হাজির হয়েছিলেন বহু মানুষ। ধোনি বারামুলার ওই মাঠে প্রবেশ করবার সময়েই শোনা যায় ‘বুম বুম আফ্রিদি’-র স্লোগান। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে স্থানীয় কিছু মানুষই দেশের সফলতম অধিনায়কের মাঠে প্রবেশ করার সময় ওই কাণ্ড ঘটায়।

লজ্জাকর হলেও দেশটার নাম ভারত বলেই হয়তো এমন ঘটনা সম্ভব। এমএস এই মুহূর্তে ভারতীয় সেনার সাম্মানিক ল্যাফটেনন্ট জেনারেল। যেহেতু তাঁর সঙ্গে ক্রিকেটও জড়িত তাই সেনা আয়োজিত ক্রিকেট লিগে স্বাভাবিক ভাবেই তিনি আমন্ত্রিত ছিলেন।

কাশ্মীরে বিচ্ছিন্নতাবাদের আন্দোলন যে থেমেও থামেনি তার প্রমান রবিবারের ঘটনা। জোর করে চেপে রাখা হয়েছে ‘শত্রু’ পাকিস্তানের গুনগান করা। একটু চাপ দিলেই যেকোনো সময়েই ফের শুরু হতে পারে এই আন্দোলন। না হলে খেলার ময়দান ছাড়া বা কোনও ক্রিকেটীয় যুদ্ধ ছাড়াই দেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে ‘বুম বুম আফ্রিদি’ নাম নিয়ে চিৎকার শুনতে হয় না দেশের সফলতম অধিনায়ককে। পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও প্রকাশ হয়ে যেখানে লজ্জাকর ঘটনার স্পষ্ট প্রমান মেলে।

এই ম্যাচ শেষেই আবার প্রাক্তন অধিনায়ক ভারত-পাক ক্রিকেট সিরিজ নিয়ে নিজের মতামত রাখেন। ধোনি বলেন ,‘ক্রিকেটে ভারত-পাক দ্বৈরথ সবসময়ই রোমাঞ্চকর ও উপভোগ্য৷ আগামী দিনে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলবে কিনা দুই দেশের সরকারের সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিৎ৷’