মেলবোর্ন: টুর্নামেন্টের শুরু থেকে ছিলেন দুরন্ত ছন্দে। ওপেনে নেমে গড়ে দিচ্ছিলেন ম্যাচের ভিত। ফাইনালের আগে টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বোচ্চ রানস্কোরার ছিলেন তিনি। তালগোল পাকালো ফাইনালে গিয়েই। বড় ম্যাচে গিয়েই চোক করলেন ভারতের মহিলা ক্রিকেটের নয়া টিন-এজ ব্যাটিং সেনসেশন শেফালি বর্মা। অ্যালিসা হিলির গুরুত্বপূর্ণ ক্যাচ ফস্কালেন। খেলার শুরুতে যা বদলে দিতে পারত ম্যাচের ভবিষ্যৎ। এরপর পাহাড়প্রমান রানের চাপ মাথায় নিয়ে ব্যাট হাতেও চূড়ান্ত ব্যর্থ। তবু ফাইনালে নেমে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন শেফালি।

ভারতের কনিষ্ঠ মহিলা ক্রিকেটার হিসেবে বিশ্বকাপ ফাইনালে খেলার নজির গড়েছিলেন আগেই। এবার পুরুষ-মহিলা নির্বিশেষে কনিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলার নজির গড়লেন ভারতের ওপেনিং ব্যাটার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের শাকুয়ানা কুইনটাইনের পুরনো রেকর্ড ভেঙে আন্তর্জাতিক নারী দিবসে নয়া রেকর্ড সেট করলেন শেফালি। মাত্র ১৬ বছর ৪০ দিনে বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলার নজির গড়লেন এই টিন-এজ ক্রিকেটার।

এর আগে কনিষ্ঠ মহিলা ক্রিকেটার হিসেবে ২০১৩ সালে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ খেলেছিলেন উইন্ডিজের শাকুয়ানা কুইনটাইন। তবে বিশ্বরেকর্ড গড়ার দিনে মাঠে কিন্তু ডাহা ফেল করলেন শেফালি। অস্ট্রেলিয়া ইনিংসের পঞ্চম বলেই দীপ্তি শর্মার ডেলিভারিতে কভারে অ্যালিসা হিলির ক্যাচ মিস করেন শেফালি। জীবন ফিরে পেয়ে ৩৯ বলে ৭৫ রানের ইনিংস খেলে দলকে শক্ত ভিতের উপর দাঁড় করিয়ে দেন হিলি। পাশাপাশি বেথ মুনির ৫৪ বলে ৭৮ রান অস্ট্রেলিয়াকে ২০ ওভারে পৌঁছে দেয় পাহাড়প্রমান ১৮৪ রানে।

জবাবে ব্যাট হাতে ওপেন করতে নেমে প্রথম ওভারেই ফিরে যান শেফালি। ৩ বল খেলে মাত্র ২ রানে আউট হন তিনি। অস্ট্রেলিয়ার মেগান স্কাট ও জেস জোনাসেনের স্পেলের সামনে অসহায় আত্মসমর্পণ করে হরমনপ্রীত ব্রিগেড। ১৯.১ ওভারে মাত্র ৯৯ রানে শেষ হয়ে যায় ভারতের ইনিংস। শেফালির বিশ্বরেকর্ডের মঞ্চে পঞ্চমবারের জন্য খেতাব জিতে নেয় অস্ট্রেলিয়ার মেয়েরা।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা