কলকাতা:পেট্রো পণ্য রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে শুক্রবার ৫ মার্চ এসএফআই ও ডিওয়াইএফআই সহ ১০টি বাম ছাত্র ও যুব সংগঠন বিক্ষোভ সমাবেশ করবে। তাদের অভিযোগ যেভাবে পেট্রোল ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের দাম বাড়ছে তাতে বোঝা যাচ্ছে না দেশে আদৌ সরকার আছে কিনা। এই বিষয়ে কেন্দ্রের পাশাপাশি রাজ্য সরকারের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গিয়েছে এসএফআই ডিওয়াইএফআইকে।ইতিমধ্যে রান্নার গ্যাসের দাম বেড়ে গিয়ে হয়েছে ৮৪৫ টাকা । অন্যদিকে বিভিন্ন রাজ্য়ে পেট্রোল ডিজেলের দাম যথাক্রমে ৯০ টাকা এবং ৮০ টাকা ছাড়িয়েছে। কেন্দ্রের পাশাপাশি রাজ্য সরকারেরে ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন  তোলা হচ্ছে ।  এই বিষয়ে তারা অন্য় রাজ্যের ভূমিকার কথা বলেছে। তাদের প্রশ্ন যেখানে কেরল ছত্রিশগড়ে রাজ্য সরকার ১২ টাকা তেলের দাম কমাতে পেরেছে সেখানে এখানকার রাজ্য সরকার মাত্র ১ এক টাকা কমিয়েছে।

এদিকে আবার পেট্রোপণ্য সহ অন্যান্য অত্যাবশ্যকীয় পণ্য মূল্যবৃদ্ধি প্রতিবাদে যৌথভাবে পথে নামছে বামফ্রন্ট কংগ্রেস এবং আই এস এফ। ৬ মার্চ রাজ্যজুড়ে যৌথভাবে এরা মিছিল করবে। কলকাতায় কেন্দ্রীয়ভাবে মিছিল করার পাশাপাশি রাজ্যের প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রে মিছিল করা হবে।

বাম কংগ্রেস এবং আইএসএফের পক্ষ থেকে যৌথভাবে জানিয়েছে, পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধির জন্য বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বাড়ছে। তাছাড়া জ্বালানি তেলের পাশাপাশি রান্নার গ্যাস যেভাবে সম্প্রতি বেড়ে গিয়েছে তাতে সাধারণ মানুষের জীবনধারণ দুরূহ হয়ে উঠেছে। এছাড়া অত্যাবশ্যকীয় খাদ্য সামগ্রীর দাম বাড়তে দেখা গিয়েছে। এমনিতেই করোনা মহামারীর জেরে দেশের অর্থনৈতিক বেহাল দশা। এই অর্থনৈতিক সংকটের সময় বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন অথবা তাদের আয় কমে গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আবার জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধির জেরে সাধারণ মানুষের সংসার চালানো কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। তারই প্রেক্ষিতে ৬ মার্চ রাজ্যজুড়ে কলকাতার পাশাপাশি বিভিন্ন বিধানসভা এলাকায় মিছিলের আয়োজন করছে বাম কংগ্রেস এবং আইএসএফ। ওইদিন কলকাতার এন্টালী বাজার থেকে একটি মিছিল বের হয়ে মহাজাতি সদন পর্যন্ত যাবে।

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।