নয়াদিল্লি: বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি দফতরে যৌন হেনস্থা খুব চেনা সমস্যা৷ এবার তারই বিরুদ্ধে কড়া হচ্ছে আইন৷ নতুন দুর্নীতি বিরোধী আইন বা Anti-Corruption law অনুসারে অফিসে কাজ আদায়ের জন্য যৌন আবেদন ও হেনস্থা দুটোই দণ্ডনীয় অপরাধ৷ অভিযোগ প্রমাণ হলে অভিযুক্তের ৭ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে৷

২০১৮-র দুর্নীতি দমনের সংশোধনী বিল অনুসারে, অফিসের কাজ আদায়, বা গাফিলতি ঢাকতে উর্ধ্বস্তন কর্তৃপক্ষকে ‘ঘুষ’ দেওয়ার পথ বাছেন কর্মচারীরা৷ এই ‘ঘুষ’ টাকা লেনদেন একেবারেই নয়৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ‘ঘুষ’ হিসেবে যৌনতা-কে সংশোধনী বিলে চিহ্নিত করা হয়েছে৷ অর্থাৎ, অনেক সময়ই অধস্তনকে বাধ্য করা হয়, বা কখনও স্ব-ইচ্ছাতেও অধস্তন কর্মী যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হন৷ যা প্রমাণ হলে অধস্তন ও উর্ধ্বস্তন ২ জনেই শাস্তির মুথে পড়বেন৷

আরও পড়ুন: ১০,০০০ টাকা পেনশন দিচ্ছে মোদী সরকার, কীভাবে পাবেন জানুন

আইন অনুসারে থানায় এই আইনকে হাতিয়ার করে অভিযোগ দায়ের করা যাবে৷ সংশোধিত আইনে স্পষ্ট হল, পারস্পরিক বোঝাপড়ার মধ্যে কাজের জায়গায় যৌন আবেদন বা হেনস্থা কোনওভাবেই কাম্য নয়৷ শুধু তাই নয়, নতুন বিল অনুসারে, অফিসের কোনও কর্মচারীর কাজে খুশি হয়ে তাকে ব্যক্তিগত ভাবে বড়সড় উপহার দিতে পারবে না উর্ধ্বস্তন কর্তৃপক্ষ৷

বড়সড় উপহার অর্থাৎ, সম্পত্তি কিনে দেওয়া, বিদেশ ভ্রমণের মত বিষয়গুলিকে আলাদা করে চিহ্নিত করা হয়েছে৷ সংশ্লিষ্ট সংস্থার অনুমতি ছাড়া কোনওভাবেই এই ধরণের কাজ করা যাবে না৷

আরও পড়ন: ‘বনগাঁ যেন পাকিস্তান’, বললেন সব্যসাচী

চলতি বছরের জুলাই মাসে কেন্দ্র সংশোধনী বিল আনে, যাতে সম্মতি দেন রাষ্ট্রপতি রামনন্দ কোভিন্দ৷ এরপরই পার্লামেন্টে পাশ হয় সংশোধিত Anti-Corruption Law৷ যার দ্বারা অনেকাংশে বিভিন্ন দফতরের অন্দরের দুর্নীতি সাফ করা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.