মাদ্রিদ: সেভিয়াকে বড় ব্যবধানে হারিয়ে কোপা দেল রে-এর জিতল বার্সেলোনা৷ এই নিয়ে টানা চতুর্থবার কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়ন হল স্প্যানিশ ফুটবল জায়েন্টরা৷ ওয়ান্দা মেট্রোপলিটনের মাঠে সুয়ারেজ ও মেসি খেলার প্রথমার্ধেই তিন গোলে দলকে এগিয়ে দেন৷ শেষ পর্যন্ত ০-৫ গোলস্কোর ম্যাচ জেতে বার্সা৷

কৌতিনহোর দেওয়া পাস থেকে ম্যাচের ১৪ মিনিটে দলের হয়ে প্রথম গোলটি করেন সুয়ারেজ৷ কিছুক্ষণ পর ৩১ মিনিটে জর্দি আলবার বাড়ানো বলকে জোরালো শটে গোলে পরিবর্তিত করেন মেসি৷ সুয়ারেজের জো়ড়া গোল এবং মেসির এক গোল ছাড়াও ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে ইনিয়েস্তা এবং কৌতিনহো দুটি গোল করেন৷

প্রথমার্ধে বার্সার হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার সুয়ারেজ৷ ডি-বক্সে বল পেয়ে মেসি ও সুয়ারেজ নিজেদের মধ্যে বল নিয়ে খেলতে থাকেন৷ শেষে গোল মুখে মেসির বাড়িয়ে দেওয়া বল বিপক্ষের জালে জড়িয়ে দিতে কোন ভুল করেননি বার্সার উরুগুয়ান স্ট্রাইকার৷ ম্যাচের প্রথমার্ধে একবার অফসাইডের শিকার হন মেসি৷ তা নাহলে প্রথমার্ধে গোলের ব্যবধান বাড়ত বার্সার৷

ম্যাচের প্রথম ৫০ মিনিট যদি মেসি-সুয়ারেজ জুটির হয় তাহলে কোপা দেল রে-এর শেষ ৪৫ মিনিট মাঠে নিজের উপস্থিতি জানান দিলেন বার্সার হয়ে শেষ ফাইনাল খেলা মিডফিল্ডার ইনিয়েস্তা৷ ম্যাচের ৫২ তম মিনিটে দলের হয়ে চতুর্থ গোলটি করেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার৷ এরপর পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যবধান ৫-০ করেন বার্সার ব্রাজিলিয়াল মিডফিল্ডার কৌতিনহো৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.