পাটনা: রেল লাইনে ফাটলের জেরে বেলাইন হয়ে যায় সীমাঞ্চল এক্সপ্রেস৷ প্রাথমিক তদন্তে দুর্ঘটনার কারণ হিসাবে এমনটাই জানা গিয়েছে৷ রবিবার ভোররাতে বিহারের হাজিপুরে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে দিল্লিগামী সীমাঞ্চল এক্সপ্রেস৷ লাইনচ্যুত হয়ে যায় ১১টি কোচ৷

ঘড়ির কাটায় তখন ভোর ৩টে ৫৮ মিনিট৷ অধিকাংশ যাত্রী তখন ঘুমিয়ে৷ এমন সময় দিল্লিগামী সীমাঞ্চল এক্সপ্রেসের ন’টি কামরা বেলাইন হয়ে যায়৷ পরে রেলের তরফে জানানো হয়, ১১টি কামরা লাইনচ্যুত হয়েছে৷ যার মধ্যে রয়েছে তিনটি স্লিপার কোচ, একটি জেনারেল ও একটি এসি কোচ৷ রেলের তরফে জানানো হয়েছে, এখনও অবধি সাত জন যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে৷ আহত ১৫৷ উদ্ধারের কাজ চলছে৷ অনেকে কামরার ভেতর আটকে রয়েছেন৷ তাদের উদ্ধারে হিমশিম খেতে হচ্ছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকে৷ নিহত বা আহতের সংখ্যা বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে৷

এদিকে দুর্ঘটনার তদন্তে বিশেষ তদন্ত কমিটি তৈরি করা হয়েছে৷ ইতিমধ্যে রেলের তরফে মৃতদের পরিবারকে পাঁচলক্ষ, গুরুতর আহতদের এক লক্ষ এবং আহতদের পঞ্চাশ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণের ঘোষণা করা হয়েছে৷ এর বাইরে যাত্রীদের চিকিৎসার যাবতীয় খরচ বহন করবে রেল৷

ইস্ট সেন্ট্রাল রেলের সিপিআরও রাজেশ কুমার জানান, প্রাথমিক তদন্তে বারউনির কাছে রেল লাইনে ফাটলের কারণে এমন বিপত্তি বলে মনে করা হচ্ছে৷ যে ১১টি কামরা বেলাইন হয়েছে তার মধ্যে তিনটি কামরা একেবার উল্টে গিয়েছে৷ অক্ষত ১২টি কামরা হাজিপুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ সেখানে আরও কিছু কামরা যোগ করে ট্রেনটিকে আনন্দ বিহার রেল স্টেশনে নিয়ে যাওয়া হবে৷