কলকাতা: আজ থেকে শুরু হয়েছে দেশজুড়ে দুদিনের ব্যাংক ধর্মঘট৷ পাঁচদিনের কর্মদিবস, বেতন বৃদ্ধি দাবি সহ বেশ কিছু দাবিতে ধর্মঘট ডেকেছেন ব্যাংকের কর্মী ও ইউনিয়নের নয়টি ইউনিয়নের যৌথমঞ্চ ইউনাইটেড ফোরাম এফ ব্যাংক ইউনিয়নস (এইএফবিইউ)। ফলে ব্যাংক পরিষেবা ব্যহত হয়েছে ৷ পাশাপাশি এই ধর্মঘটের প্রভাব পড়েছে এটিএম গুলিতেও৷ স্বাভাবিক ভাবেই হয়রানি গ্রাহকদের৷

কলকাতার পাশাপাশি জেলা গুলিতেও ধর্মঘটের খবর আসতে শুরু করেছে ৷ শুক্র এবং শনিবার দুদিন ধর্মঘট তারপরের দিন রবিবার ছুটির দিন৷ ফলে সোমবারের আগে স্বাভাবিক ব্যাংক পরিষেবা পাওয়া যাবে না৷ অল ইন্ডিয়া ব্যাংক এমপ্লয়িজ অ্যাসেসিয়েশনের সভাপতি রাজেন নাগার জানিয়েছেন, কলকাতা পাশাপাশি গোটা দেশে এই ধর্মঘটের ব্যাপক সাড়া মিলেছে ৷ এটিএমের নিরাপত্তারক্ষীরাও তাদের ইউনিয়নের সদস্য হওয়ায় এই ধর্মঘটের প্রভাব এটিএমগুলিতে দেখা যাচ্ছে বলে তিনি জানিয়েছেন৷

প্রসঙ্গত আবার আজই আর্থিক সমীক্ষা পেশ করবে কেন্দ্রীয় সরকার এবং আগামিকাল সাধারণ বাজেট পেশ করবেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। এই পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে ব্যাংক ধর্মঘট একটা নজিরবিহীন ঘটনা। এমনিতেই অর্থনীতির বেহাল দশা তার উপর আবার এই ধর্মঘটের পক্ষে ভাল বিজ্ঞাপণ নয় বলেই মনে করছেন বিভিন্ন মহল।
প্রসঙ্গত এই বৃহস্পতিবার ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সংগঠন আইবিএ-র সঙ্গে ইউএফবিইউ বৈঠকে বসলেও তা থেকে সমাধান সূত্র না বের হওয়ায় ধর্মঘটে অটল থাকার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা ৷ এর আগে সোমবার তাদের সঙ্গে লেবার কমিশনারের বৈঠক হলেও সেটিও ব্যর্থ হয়েছিল ৷ ১৭ ফেব্রুয়ারি লেবার কমিশনারের সঙ্গে তাদের পরবর্তী বৈঠক রয়েছে৷

এদিকে ইতিমধ্যেই ১১ মার্চ ফের ধর্মঘটের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ব্যাংক কর্মীরা। তারপরেও দাবি না মানলে ফের ১ এপ্রিল থেকে লাগাতার ব্যাংক ধর্মঘটের ডাকা হচে পারে বলেই হুমকি দিয়েছে ইউনাইটেড ফোরাম অফ ব্যাংক ইউনিয়নস।