বেলগাভি : ২০ জন মহিলাকে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হল সিরিয়াল কিলার। উমেশ রেড্ডি নামে ওই সিরিয়াল কিলারের ফাঁসির আদেশ বহাল রাখল শীর্ষ আদালত। কর্নাটক পুলিশ সার্ভিসের ট্রেনিং নেওয়া উমেশের কর্নাটক, মহারাষ্ট্র ও গুজরাট মিলিয়ে ২০ জন মহিলাকে ধর্ষণ করে খুন করে বলে অভিযোগ ছিল। পুলিশি জেরায় ১৮ জনকে খুনের অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছিল সে।

মূলত গৃহবধূদেরই নিশানা করত উমেশ। স্বামীরা অফিসের কাজে বাইরে চলে গেলে, দুপুর বেলায় বিভিন্ন এলাকায় গৃহবধূদের কাছে ঠিকানা জিজ্ঞেস করত উমেশ। কখনও আবার জল চাওয়ার অছিলায় তাঁদের ঘরে ঢুকে পড়ত সে। এরপর ছুরি দেখিয়ে পোশাক খুলতে বাধ্য করত ওই বধূদের। তারপর ধর্ষণ করে ওই মহিলাদের ছুরি দিয়ে খুন করত এই সিরিয়াল কিলার। ২০০৬ সালে পুলিশের জালে ধরা পরে হায় সে। এরপর ওই বছরেই ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট উমেশের বিরুদ্ধে ফাঁসির সাজা শোনায়। ২০০৭ সালে সেই রায় বহাল রাখে কর্নাটক হাইকোর্ট। ২০০৯ সালে রিভিউ পিটিশনের জন্য ফের হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয় উমেশ। কিন্তু, তাও খারিজ হয়ে যায়। ২০১১ সালে শীর্ষ আদালতের প্রাণভিক্ষার আবেদন করে বছর ৫৭-র উমেশ রেড্ডি। কিন্তু, মৃত্যুদণ্ডের সাজাই বহাল রাখে সুপ্রিম কোর্ট। তা পুনর্বিবেচনার জন্য রিভিউ পিটিশন দাখিল করে উমেশ। গত ৩ অক্টোবর তা খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। বর্তমানে কর্নাটকের হিন্দলগা জেলে শেষ দিন কাটাচ্ছে উমেশ রেড্ডি।