serena entered last 4
মরশুমের প্রথং গ্র্যান্ড স্ল্যামে ছন্দে সেরেনা৷

মেলবোর্ন: কোভিড আবহে মরশুমের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যামে দারুণ ছন্দে সেরেনা উইলিয়ামস৷ কেরিয়ারের ২৪তম গ্র্যান্ড স্ল্যামের লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শেষ চারে পৌঁছলেন কিংবদন্তি মার্কিন টেনিস তারকা৷ মহিলা সিঙ্গলসের সেমিফাইনালে প্রাক্তন বিশ্বের এক নম্বর সেরানার সামনে বিশ্বের তিন নম্বর নাওমি ওসাকা৷

মঙ্গলবার কোয়ার্টার ফাইনালে স্ট্রেট সেটে সিমোনা হ্যালেপকে উড়িয়ে দেন সেরেনা৷ মার্কিনির পক্ষে খেলার ফলাফল ৬-৩,৬-৩৷ সেরেনার সামনে দাঁড়াতে পারেননি রোমানিয়ান প্রতিদ্বন্দ্বী৷ মাত্র ৮০ মিনিটেই বিশ্বের দু’ নম্বর হ্যালেপকে উড়িয় দিয়ে শেষ চারে পৌঁছে যান সেরেনা৷ সর্বকালের সর্বাধিক গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের নতুন রেকর্ড থেকে আর মাত্র দু’টি ম্যাচ জয় থেকে দূরে রয়েছেন তিনি।

এদিন রড লেভার এরিনায় অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শেষ আটের ম্যাচে বিশ্বের দুই নম্বর বাছাই হ্যালেপকে কোনও সুযোগই দেননি মার্কিন কৃষ্ণসুন্দরী। সবশেষ ২০১৯ সালে উইম্বলডনে মুখোমুখি হয়েছিলেন এ দুই তারকা। সেবার অবশ্য জয় পেয়েছিলেন হ্যালেপ। এদিন পেরে ওঠেতে পারেননি তিনি৷ অথচ সাম্প্রতিক সময়ের রেকর্ডে বিশ্বের ১১ নম্বর বাছাই সেরেনার চেয়ে এগিয়ে ছিলেন হ্যালেপই।

অসাধারণ জয়ের পর ম্যাচ শেষে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে মার্কিনি বলেন, ‘এই আসরে এটাই সবচেয়ে সেরা ম্যাচ ছিল, আমি নিশ্চিত। আমি বিশ্বের দু’নম্বর খেলোয়াড়ের বিপক্ষে লড়েছি৷ জানতাম আমাকে ভালো খেলতেই হবে। আমি এটা করতে পেরেছি। আমি খুবই রোমাঞ্চিত।’ ২০১৭ সালের পর থেকে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেতাব জেতেননি সেরেনা৷

সেমি ফাইনালে জাপানি তারকা ওসাকার বিরুদ্ধে কোর্টে নামবেন সেরেনা। কোয়ার্টার ফাইনালে তাইওয়ানের সু-উইয়ের বিরদ্ধে জেতেন ওসাকা। সেরেনার মতো তিনিও প্রতিদ্বন্দ্বীকে স্ট্রেট সেটে (৬-২, ৬-২) হারান৷ ওসাকার সঙ্গে সেরেনার লড়াই ভালো জমে৷ এখন পর্যন্ত চারবারের সাক্ষাতে দু’বার জিতেছেন দু’জনে৷ তবে শেষ দু’বার জিতেছেন ওসাকা৷ শেষবার ২০১৮ সালে ইউএস ওপেনের ফাইমালে মুখোমুখি হয়েছিলেন সেরেনা-ওসাকা৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.