নয়াদিল্লি : আরও জমকালো, আরও বিলাসবহুল, আরও বৃহৎ। তৈরি হচ্ছে নতুন সংসদ ভবন। এই ভবনে প্রত্যেক সাংসদের জন্য পৃথক অফিস থাকবে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়াও তৈরি হচ্ছে সংবিধান হলঘর, সাংসদ লাউঞ্জ, খাবার জায়গা, গ্রন্থাগার,পার্কিং লট। জানানো হয়েছে ২০২২ সালের অক্টোবরের মধ্যে এটি তৈরি হয়ে যাবে।

প্রত্যেক সাংসদের নিজস্ব অফিসে থাকবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মেশিন। সেগুলি হবে পেপারলেস অফিস। অর্থাৎ পুরো কাজ হবে যন্ত্রের সাহায্য, ডিজিটাল প্রক্রিয়ায়। কোনও কাগজ ব্যবহার করা হবে না।

লোকসভা সেক্রেটারিয়েটের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে অধিবেশন ও অন্যান্য অনুষ্ঠান আপাতত পুরোনো ভবনেই হবে, যতদিন না নতুন ভবন তৈরি হয়। বায়ু ও কোলাহল নিয়ন্ত্রিত প্রক্রিয়ায় কাজ চলছে নতুন ভবনের। কনস্টিটিউশন হল তৈরি হচ্ছে বিশাল আকারের। লোকসভায় যাতে ৮৮৮ জন সাংসদ বসতে পারেন, তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। রাজ্যসভায় একসাথে বসতে পারবেন ৩৮৪ জন সাংসদ বলে জানানো হয়েছে।

বর্তমানে লোকসভায় ৫৪৩ জন ও রাজ্যসভায় ২৪৫ জন সাংসদ বসতে পারেন। এদিকে, টাটা প্রজেক্ট তৈরি করছে নতুন সংসদ ভবন। ৮৬১.৯০ কোটি টাকার বরাতে সংসদ ভবন তৈরি করছে টাটা গ্রুপ। লারসেন অ্যান্ড টুবরোকে পিছনে ফেলে বরাত জিতে নেয় টাটা। ৮৬৫ কোটি টাকার প্রস্তাব রেখেছিল টাটা। সেই প্রস্তাব মঞ্জুর করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় পূর্ত মন্ত্রক ফিনান্সিয়াল বিড রেখেছিল নতুন সংসদ ভবনের নির্মাণের জন্য। এক বছরের মধ্যে নতুন ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হবে বলে খবর। একটা ত্রিভুজের আকারে তৈরি হবে নতুন সংসদ ভবন। ব্রিটিশ শাসন কালে বর্তমান ভবনটি তৈরি হয়েছিল। যেটি মূলত গোলাকার।

গত বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালেই স্পীকার ওম বিড়লা নতুন সংসদ ভবনের কথা উল্লেখ করেন। তবে তখন তিনি জানিয়ে ছিলেন কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি এই বিষয়ে। প্রাথমিক ভাবে এইকাজ এখনও শুধুমাত্র ভাবনা চিন্তার পর্যায়ে থাকলেও, এখন কাজ শেষ করতে উঠে পড়ে লেগেছে মোদী সরকার। উঠে আসছে নানা দিক। নরেন্দ্র মোদীর সাফল্যমণ্ডিত দ্বিতীয় দফায় তৈরি হয়েছে বেশ কিছু নজির। মোদীর ‘নতুন ভারতে’র অবিচ্ছেদ্য অংশ সংসদের বিস্তার ঘটানো ও আধুনিকীকরন। তাই এই নতুন সংসদ ভবন তৈরি করা হবে।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।