মুম্বই : হেভিওয়েট রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের পতনের সঙ্গে সঙ্গে বুধবার শেয়ার বাজারে ধস নেমেছে। এর ফলে টানা চারদিন ধরে শেয়ারবাজারে সূচক নিম্নমুখী রয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজার দুর্বল থাকা, তৃতীয় ত্রৈমাসিকে ফলাফল মিশ্র এবং বিদেশি লগ্নিকারী প্রতিষ্ঠানের শেয়ার বেচার প্রবণতা এদেশের শেয়ারবাজারে যেন গর্ত খুঁড়ে দিয়েছে । তাছাড়া বাজেটের আগে লগ্নিকারীদের মধ্যে শেয়ার বেচে লাভের টাকা ঘরে তোলার প্রবণতা দেখা দিয়েছে।

এদিন বিএসই সেনসেক্স ৯৩৮ পয়েন্ট নেমে গিয়ে অবস্থান করছে ৪৭,৪১০ পয়েন্টে অন্যদিকে এনএসই নিফটি ২৭১ পয়েন্ট নেমে অবস্থান করছে ১৩,৯৬৮ পয়েন্ট । নিফটি মিডক্যাপ ১০০ এবং নিফটি ৫০০ সূচক নেমেছে যথাক্রমে ১.৫৮ শতাংশ এবং ১.৬৮ শতাংশ। অন্যদিকে অবশ্য নিফটি স্মল ক্যাপ সূচক ০.১৫ শতাংশ উপরে উঠেছে।

বুধবার এশিয়ার শেয়ারগুলি নিম্নমুখী এবং ইউরোপের শেয়ারও মনে করা হচ্ছে পড়বে। তবে মার্কিন কর্পোরেটদের আয় বাড়ায় গ্লোবাল স্টক রেকর্ড উচ্চতার কাছাকাছি । এদিকে আবার নতুন বৈশিষ্ট্যের করোনাভাইরাস মাথাচাড়া দেওয়ায় নতুন করে লকডাউন এবং নিয়ন্ত্রণ আসতে পারে।
অন্যদিকে করোনা ভ্যাকসিন বিতরণ ঘিরে হতাশা বাড়তে দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন দেশে। ফলে সব মিলিয়ে একটা অস্থির সময়।

ডিসেম্বরের শেষ হওয়া ত্রৈমাসিকে বেশ কিছু সংস্থার পারফরম্যান্স খুবই ভালো। তবে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ হতাশ করেছে লগ্নিকারীদের। যার ফলে এই শেয়ারের রীতিমতো পতন দেখা যাচ্ছে। তাছাড়া বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে ইতিমধ্যেই বাজারের অবস্থা বড্ড বেশি বেড়েছিল তাই সংশোধন আবশ্যিক হয়ে উঠেছে। বিশেষত মার্কেট ক্যাপ এবং জিডিপি অনুপাত বড্ড বেশি হয়ে গিয়েছে। এর ফলে লগ্নিকারীদের মধ্যে শেয়ার বেচে লাভের টাকা ঘরে তোলার প্রবণতা খুবই স্বাভাবিক বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা ‌।তাছাড়া আর কয়েক দিনের মধ্যেই সাধারণ বাজেট। এই করোনা সংকটের মধ্যে বাজেটে কি হয় তা নিয়ে একটা উৎকণ্ঠা রয়েছে লগ্নিকারীদের মধ্যে। ফলে বেড়ে যাওয়া শেয়ার ধরে রাখার বদলে তা বেচে লাভের টাকা ঘরে তুলতে চাইছে লগ্নিকারীরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।