মুম্বই: সপ্তাহের শুরুতে ফের ধস নামল শেয়ার বাজারে। করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে সোমবার বাজার খুলতেই ক্রমেই নিম্নমুখী সেনসেক্স এবং নিফটি।

শুক্রবার কিছুটা আশা জাগালেও সোমবার ফের ২০০০ পয়েন্ট নেমে গিয়েছে সেনসেক্স। পাশাপাশি নিম্নমুখী নিফটিও। ৫০০ পয়েন্ট নেমে নিফটি দাঁড়িয়েছে ৯,৪০০ তে। পাশাপাশি এর প্রভাব পড়ে ব্যাংক এবং আইটি সেক্টরেও। তবে লোকসানে চলা ইয়েস ব্যাংকের শেয়ারের দাম কিছুটা বেড়েছে। এই ব্যাংকের শেয়ার অংশিদারি ক্ষেত্রে স্টেট ব্যাংকের বেশ কিছু পদক্ষেপের কারণে চাঙ্গা দেখা গিয়েছে এই ব্যাংককে।

বিশ্বজুড়ে অপরিশোধিত তেলের দাম পড়ায় তার প্রভাব পড়েছে শেয়ারে। তেলের দাম পড়াতে ইতিবাচক প্রভাব থাকলেও টাকার পরিপ্রেক্ষিতে দাম বাড়ছে ডলারের।

তবে শেয়ার বাজারের এই পতনের অন্যতম কারণ হিসেবে বিশেষজ্ঞরা ইঙ্গিত করছেন করোনা আতঙ্কের দিকেই। ইতিমধ্যে বিশ্বজুড়ে এই ভাইরাসের হাতে প্রাণ গিয়েছে অনেকের। পাশপাশি ভারতেও ক্রমেই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যে করোনা আক্রমণের জেরে প্রাণ গিয়েছে দুজনের। পাশপাশি লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সব মিলিয়ে রীতিমত মাথায় হাত লগ্নিকারীদের। ২০০৮ সালে আর্থিক মন্দার সময়ে যে ভাবে বাজারে ধস নেমেছিল করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে বাজারের পরিস্থিতি সেদিকে এগোচ্ছে বলে মনে করছেন অনেকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।