মুম্বই: ভারতের শেয়ার বাজার নতুন উচ্চতায় ৷ সেনসেক্স গত দিনের তুলনায় ১৮৩ পয়েন্ট উপরে উঠে অবস্থান করছে ৪০,৬৫৩ পয়েন্টে৷ তবে এদিন এক সময় বিএসই সূচক উঠে গিয়েছিল ৪০,৬৮২ পয়েন্টে৷অন্যদিকে দিনের শেষে ১২,০১২ পয়েন্টে অবস্থান করছে ৷ গত জুন মাসের পর এদিনই প্রথম ১২হাজার ছাড়াল এই শেয়ার সূচক৷

বুধবার সরকার ঘোষণা করেছিল মাঝপথে আটকে যাওয়া আবাসন প্রকল্পগুলিকে যাতে ফের কাজ শুরু করে নির্মাণ কাজ শেষ করতে পার তার জন্য ২৫,০০০ কোটির একটি তহবিল গড়ার৷কারণ সরকারের আশা, এরফলে ফ্ল্যাট বুক করে, টাকা জমা দিয়ে দিনের পর দিন তা না পেয়ে বসে থাকা মানুষগুলির সুবিধা হবে৷ পাশাপাশি উপকৃত হবেন টাকার অভাবে বন্ধ হওয়া আবাসন প্রকল্পের প্রোমোটার থা আবাসন নির্মাণকারী সংস্থাগুলি।

পাশপাশি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর নির্মলা সীতারমনের আশা, এই থমকে যাওয়া আবাসন প্রকল্পগুলি কাজ শুরু করলে তার ইতিবাচক প্রভাব দেশের অর্থনতিতেও পড়বে ৷ এই কাজ শুরু হলে একদিকে যেমন সিসেন্ট, লোহা ইত্যাদি ক্ষেত্র যেমন চাঙ্গা হবে তেমনই আবার কিছুটা কর্মসংস্থানও সৃষ্টি হবে৷

সেদিক থেকে বাজার বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন সরকারের এই ঘোষণার ইতিবাচক সাড়া মিলল শেয়ার বাজারে৷বেশ কিছু রিয়েল এস্টেট সংস্থার শেয়ার এদিন রীতিমতো বাড়তে দেখা গিয়েছে ২-৫ শতাংশ৷

গত ১০টি লেনদেনের দিনের মধ্যে ৯দিনই সেনসেক্স বেড়েছে এবং নতুন উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছে শেয়ার সূচককে৷

প্রসঙ্গত অর্থনৈতিক গতি শ্লথ হলেও গত কয়েকদিন ধরে ভারতীয় শেয়ার বাজারের উত্থান লক্ষ্য করা যাচ্ছিল। তবে বাজারের এই উত্থান নিয়ে বার বারই প্রশ্ন উঠছে কারণ বর্তমানে দেশের বিভিন্ন পরিসংখ্যানই ইঙ্গিত দিচ্ছে অর্থনীতির বেহাল দশার৷ সে দিক থেকে বলা যায় শেয়ার বাজারে অবস্থা ব্যতিক্রম৷ সেপ্টেম্বর মাসে পরিকাঠামো শিল্প সরাসরি কমে গিয়েছে ৫.২শতাংশ। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে জিডিপির উপরে।

তাছাড়া, চলতি অর্থবর্ষের প্রথম ছ’মাসেই রাজকোষ ঘাটতি যা ধরা হয়েছিল ৯২.৬ শতাংশ হয়ে গিয়েছে। শিল্প ক্ষেত্রে খারাপ সময়ের ইঙ্গিত দিয়েছে জিএসটি আদায় কমে যাওয়ার মাধ্যমে।চিন্তা বেড়েছে কর্মসংস্থান এবং বেকারত্ম নিয়েও৷ যেহেতু সিএমআইই-র পরিসংখ্যান জানিয়েছে অক্টোবরে বেকারত্বের হার বেড়ে হয়েছে ৮.৪৮ শতাংশে।যা গত তিন বছরে সর্বোচ্চ। উৎসবের মরসুমেও বিক্রি বাটার হাল খারাপ৷ এই পরিস্থিতিতে নানা ভাবে সমালোচনার মুখে পড়ায় কেন্দ্রের দু্শ্চিন্তা বাড়ছে। ফলে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠছে শেয়ার বাজারের সূচক উঠলেও তা কতটা ধরে রাখা সম্ভব।