মুম্বই : সপ্তাহের প্রথম দিনেই ধসে গেল শেয়ারবাজার। যার জেরে শেয়ারবাজার থেকে মুছে গেল কয়েক লক্ষ কোটি টাকা। সকাল থেকেই শেয়ার সূচক ছিল নিম্নমুখী। সোমবার দিনের শেষে বাজার বন্ধ হওয়ার সময় সেনসেক্স ২০০২ পয়েন্ট বা ৫.৯৪ শতাংশ নেমে অবস্থান করছে ৩১,৭১৫ পয়েন্টে। একইরকমভাবে নিফটি এদিন ৫৬৬ পয়েন্ট বা ৫.৭৪ শতাংশ নেমে অবস্থান করছে ৯২৯৩ পয়েন্টে।

বিশেষজ্ঞদের মত, একদিকে তৃতীয় দফার লকডাউন অন্যদিকে চিন-মার্কিন বাণিজ্য সংঘাতের জেরে শেয়ারবাজারের এমন দশা হল। গোটা বিশ্বজুড়েই এখন করোনা অতি মহামারী আকার ধারণ করেছে। এদেশেও করণ আটকাতে লকডাউন চালু হয়েছে। প্রথমে ২১ দিনের ঘোষণা হলেও তা শেষ হওয়ার আগে পর্যালোচনা করে দ্বিতীয় দফার জন্য বাড়িয়ে ৩মে করা হয়। অবশ্য তারপরে তৃতীয় দফা লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে যা চলবে ১৭মে পর্যন্ত ‌। তবে এ দেশ বলে নয় করোনার জেরে আর্থিক দিক থেকে ভারতসহ গোটা বিশ্বের বেহাল দশা। এরইমধ্যে বারবার মুখ থুবড়ে পড়ছে দালাল স্টিট।

এদিকে বিভিন্ন সংস্থার মার্চ মাসে শেষ হওয়া ত্রৈমাসিক আর্থিক ফলাফল বেশ হতাশজনক। ফলে এইসব সংস্থার শেয়ারের দামে প্রভাব পড়তে দেখা গিয়েছে। শেয়ারগুলির দাম কমায় তারা টেনে নামিয়েছে শেয়ার সূচককে। তবে মার্চের আর্থিক ফলাফল খারাপ এলেও সেটা এমন কিছু নয় বলে মনে করছেন শেয়ার বিশেষজ্ঞরা।

তাদের ধারণা পরবর্তী ত্রৈমাসিকে (অর্থাৎ জুন মাসে শেষ হবে) সংস্থাগুলির আর্থিক ফলাফল আরও খারাপ হতে পারে। এদিকে করোনার কারণে গোটা দুনিয়ায় অর্থনৈতিক কার্যকলাপ স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে। তেলের দাম অনেকটাই কমে গিয়েছে। সব মিলিয়ে মন্দার কবলে গোটা বিশ্ব। আগামী দিনে বহু মানুষ চাকরি হারাবেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা। পাশাপাশি খাদ্য সংকট দেখা যেতে পারে বলেও দুশ্চিন্তা দানা বেঁধেছে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।