মুম্বই : বুধবার নিফটি পৌঁছল ১৪ হাজার ৬৪৪.৭০পয়েন্ট, মঙ্গলবারের তুলনায় বাড়ল ১২৩.৫০ পয়েন্ট। শতাংশের বিচারে ০.৮৫ শতাংশ বেড়েছে। সেনসেক্স পৌঁছেছে ৪৯,৭৯২.১২ পয়েন্টে, মঙ্গলবারের তুলনায় বাড়ল ৩৯৩.৮৩.৫০ পয়েন্ট। শতাংশের বিচারে ০.৩৭ শতাংশ বেড়েছে।

মঙ্গলবার মুম্বই স্টক এক্সচেঞ্জে বিএসই সেনসেক্স বেড়েছিল ৮৩৪ পয়েন্ট। আর ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে (এনএসই) নিফটি বেড়েছিল ২৪০ পয়েন্ট। দিনের শেষে সেনসেক্স পৌঁছেছিল ৪৯ হাজার ৩৯৮-এ। আর নিফটি পৌঁছেছিল ১৪ হাজার ৫২১-এ।

শেয়ার বাজার মার্কেট নিয়ে যারা কাজ করেন তাঁরা বলছেন, ডিসেম্বরের পর থেকে যে ত্রৈমাসিক শুরু হয়েছে তাতে দেখা গিয়েছে ভারতীয় কোম্পানিগুলির শেয়ার কেনার আগ্রহ খুব বেড়ে গিয়েছে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের। চলতি ত্রৈমাসিকে দেশের শেয়ার বাজারে সবচেয়ে কদর বেড়েছে ধাতু, ক্যাপিটাল গুডস এবং তেল ও প্রাকৃতিক গ্যাসের। সঙ্গে কদর বেড়েছে ব্যাঙ্কিং, শিল্প ও অর্থলগ্নি ক্ষেত্রগুলিরও। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই সব ক্ষেত্রে কাজ করে যে ভারতীয় কোম্পানিগুলি তাদের শেয়ার কিনতেই গত ৪ মাসে রীতিমতো হুড়োহুড়ি পড়ে গিয়েছে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের। তার ফলে, দেশের শেয়ার বাজার এখন ঊর্ধ্বমুখী।

তাঁদের আশা, চলতি অর্থবর্ষের শেষ ত্রৈমাসিকেও এই ধারা বজায় থাকবে। ফলে, দেশের শেয়ার বাজারের স্বাস্থ্য আরও দু’-তিন মাস ভালই থাকবে। এক দিনে সেনসেক্স ও নিফটি-র এমন উল্লম্ফনের ঘটনা আবারও ঘটলে তাঁরা অবাক হবেন না বলেই জানাচ্ছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।