জেনেভা: করোনা পরিস্থিতির জন্য তোলপাড় বিশ্ব। বেশির ভাগ দেশই এখনও ধাক্কা সামলে উঠতে পারেনি। তারই মধ্যে আরও আশঙ্কার কথা বলছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

সোমবার সংস্থার তরফ থেকে সতকফ করে বলা হয়েছে যে, যেসব দেশের সংক্রমণ কমে যাচ্ছে, সেখানে ফিরে আসছে ‘সেকেন্ড ওয়েভ।’ তাই একবার সংক্রমণ কমে গেলে যদি সতর্কতা নেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয় তাহলেই বিপদ।

হু-এর তরফ থেকে ড. মাইক রায়ান অনলাইন ব্রিফিং-এ বলেন, বিশ্বে এখন করোনার প্রথম ‘ওয়েভ; চলছে। এখনও দক্ষিণ ও মধ্য আমেরিকা, দক্ষিণ এশিয়া ও আফ্রিকা হু হু করে বাড়ছে সংক্রমণ। তিনি জানা, এভাবেও একেকটা ওয়েভে আসে মহামারী। তাঁর ব্যাখ্যা, ‘প্রথম ওয়েভ যখন কমে আসবে অর্থঅৎ বছর শেষে ফের সেকেন্ড ওয়েভ দেখা দেবে।

তিনি আরও স্পষ্টভাবে বলেন, প্রথম ধাক্কার পর কয়েক মাসে বাদে ফিরে আসে এই সেকেন্ড ওয়েভ। অনেক দেশেই তখন চরম পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। ফলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে কয়েক মাস লেগে যেতে পারে।

এদিকে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল বন্ধ করা হয়েছে, এমনটাই জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)।

বিশ্বের অন্যতম মেডিক্যাল জার্নাল ‘ল্যানসেট’ গতসপ্তাহে একটি সমীক্ষায় জানিয়েছে, অ্যান্টি-ম্যালেরিয়াল এই ওষুধ ব্যবহারে কোভিড-১৯ রোগীদের মৃত্যুর সম্ভাবনা আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। এমন তথ্য প্রকাশিত হওয়ার পরের সপ্তাহে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে হু, এমনটাই জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেডরোস।

টেডরস জানিয়েছে, করোনা ভাইরাসের সম্ভ্যাব্য চিকিৎসার খোঁজে ‘সলিডারিটি ট্রায়ালে’র জন্য বিশ্বের একাধিক দেশের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের নাম নথিভূক্ত করা হয়েছিল। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবেই তা বন্ধ করা হয়েছে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল। অন্যক্ষেত্রে তা চলছে বলেও জানান হয়েছে সংস্থার তরফে।

হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন সাধারণত আর্থারাইটিসের জন্য ব্যবহার হয়ে থাকে তবে কিছু জনপ্রতিনিধি যাদের মধ্যে রয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত সপ্তাহেই তিনি জানিয়েছিলেন, হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন খেয়ে তিনি ভালো আছেন। যার ফলে একবারে অনেক কেনার ছবি সামনে এসেছে।দে

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV