নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: ভারতী ঘোষের গাড়ি থেকে প্রচুর নগদ টাকা উদ্ধার হয়েছে ষষ্ঠ দফার ভোটে কয়েকদিন আগেই। এবার তল্লাশি মুকুল রায়ের গাড়িতে।

রবিবার একদিকে যখন চলছে ষষ্ঠ দফার ভোট, অন্যদিকে তখন কলকাতায় মুকুল রায়ের গড়িতে চলল দফায় দফায় তল্লাশি। আর এই ঘটনায় রীতিমত বিব্রত মুকুল। তাঁকে হেনস্থা করার জন্যই এইভাবে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

এদিন সকালে প্রথম কলকাতা বিমানবন্দরে তাঁর গাড়িতে তল্লাশি চালায় পুলিশ। এরপর কৈখালির কাছে যখন তাঁর গাড় পার হচ্ছিল, তখন ফের একবার তল্লাশি হয়। মুকুল রায় সংবাদমাধ্যমের সামনে অভিযোগ করেন যে ওই এলাকা দিয়েই রাজ্যের এক মন্ত্রীর গাড়িও গিয়েছে, কিন্তু সেই গাড়িতে কোনও তল্লাশি হয়নি। যদিও কোন মন্ত্রীর গাড়ি যাচ্ছিল, তা উল্লেখ করেননি মুকুল।

এর আগে ভারতীর গাড়ি থেকে উদ্ধার হয় প্রচুর টাকা। ভোটের ঠিক দু’দিন আগে তাঁর গাড়িতে নগদ টাকা উদ্ধার হওয়ায় রিপোর্ট তলব করে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচনের আগে টাকা বিলি করছে বিজেপি। পদ্ম শিবিরের হয়ে এই কাজ করছে সংঘের সেবকেরা। এই অভিযোগ গত কয়েকদিন ধরে বারবার বিভিন্ন জনসভায় দাঁড়িয়ে করে চলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তারপরই এই টাকা উদ্ধার।

এরপরই বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তাঁর বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা। বৃহস্পতিবার রাতে ওই টাকা উদ্ধার হওয়ার পর শুক্রবারই রিপোর্ট তলব করল কমিশন।

ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষের গাড়ি থেকে অন্তত ১ লক্ষ ২৩ হাজার নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। একজন প্রার্থীর এত নগদ টাকা একসঙ্গে বহন করা নির্বাচনী বিধিভঙ্গের সমতুল। সেই কারণেই সমস্ত টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পিংলা থানার পুলিশ। যদিও উদ্ধার হওয়া টাকার সিজার লিস্টে প্রার্থী ভারতী ঘোষ বা তাঁর সঙ্গে থাকা কোনও বিজেপি নেতা স্বাক্ষর করেননি।

উদ্ধার হওয়া টাকার যার উৎস সম্পর্কে সন্তোষজনক ব্যাখ্যা না পাওয়ায় সমস্ত টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।