ওয়াশিংন : পরিবর্তিত হচ্ছে পৃথিবীর বায়ুমন্ডল৷ এখবর জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা৷ তাদের মতে, পৃথিবীর বায়ুমন্ডল উলটে যেতে পারে৷ উন্নত প্রযুক্তির যন্ত্রে দেখা গিয়েছে পৃথিবীর চৌম্বক ক্ষেত্র প্রকৃতপক্ষেই উলটে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷

এর কারণও জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা৷ বলেছেন, হাজার বছর ধরে পৃথিবীতে পরিবর্তনের ফলে শক্তিশালী চৌম্বকক্ষেত্র ক্রমশ দুর্বল হয়ে পড়ছে৷ এটি পৃথিবীর জন্য খুব বিপজ্জনক৷ গবেষকরা জানিয়েছেন, এটি গ্রহের তেজস্ক্রিয়তা আটকানোর ক্ষমতা ও সৌর ঝড়ের মতো ঘটনা প্রতিরোধ করার ক্ষমতা কমে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে৷

তবে এই প্রথমবার নয়৷ এর আগে হাজার হাজার বার এমন ঘটনার সাক্ষী থেকেছে পৃথিবী৷ প্রাচীন পাহাড় তার সাক্ষ্য বহন করছে৷ পৃথিবীর মধ্যভাগ থেকে গলন্ত লোহা বেরিয়ে আসে৷ গ্রহের অভ্যন্তরে তাপের ফলে এই ধাতু গলে যায়৷ এই ধাতু দৈত্যাকৃতি তড়িত্ চুম্বকীয় ক্ষেত্রে ঘুরপাক খায়৷ এর ফলে শক্তি সৃষ্টি হয়৷ মাইলের পর মাইল তা ছড়িয়ে যায়৷ সূর্যের তেজস্ত্রিয়তা রোধে তা সাহায্য করে৷ এর ফলেই পৃথিবীতে প্রাণ থাকতে পারে৷ উদ্ভিদ ও প্রাণীজগতের ডিএনএ তৈরিতে এটি সাহায্য করে৷ গবেষকরা সতর্ক করেছেন, এই ঘটনার যদি পরিবর্তন ঘটে, তাহলে পৃথিবী বাসের অযোগ্য হয়ে উঠবে৷

ইলেট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক এই ঘটনাগুলিই আধুনিক সভ্যতার নিয়ন্ত্রক৷ যেই স্যাটেলাইটগুলি ইলেকট্রিক গ্রিডগুলিকে চালনা করে, সেগুলি ডুবে যাবে৷ গ্রিড ট্রান্সফর্মারগুলিতে আগুন ধরে যেতে পারে৷ কারণ গ্রিডগুলি একে অপরের সঙ্গে খুব দৃঢ়ভাবে যুক্ত৷ ফলে একটি ব্যর্থ হলে অন্যগুলিও ব্যর্থ হবে৷

তবে সব গবেষকরা এনিয়ে একমত নন৷ বৈজ্ঞানিক মহল এনিয়ে দ্বিধাবিভক্ত৷ একপক্ষ এই মত মেনে নিলেও অন্যপক্ষ এই মত মানতে নারাজ৷