নয়াদিল্লি: প্রবল শীতের দাপতে রীতিমত জবুথবু হয়ে পড়েছে উত্তর ভারত। ব্যাপক শৈতপ্রবাহ চলছে উত্তর ভারতের বিস্তির্ণ অঞ্চলে। পরিস্থিতি এমন জায়গায় গিয়ে পৌঁছে গিয়েছে যে আজ বৃহস্পতিবার রাজ্যর সব স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে হরিয়ানা সরকার।

ইতিমধ্যেই উত্তর ভারতের বশ কয়েকটি জায়গাতে শুরু হয়ে গিয়েছে শৈত্যপ্রবাহ। আগামী ২৪ ঘন্টায় শৈতপ্রবাহ আরও বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। কয়েকদিনের ঠাণ্ডাতে রীতিমত কাহিল রাজধানী দিল্লিও। বুধবার রাজধানীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল১২.৯ ডিগ্রি। আর সর্বনিম্ন ছিল ৬ ডিগ্রির কাছাকাছি। আবহাওয়া দফতরের সূত্রে জানা গিয়েছে দীর্ঘ ২২ বছরে এই রকম ঠান্ডা পড়েছে এই সমস্ত জায়গাতে।

একই অবস্থা হয়েছে পঞ্জাব, হরিয়ানা, চণ্ডীগড় উত্তর প্রদেশ ও রাজস্থানের বেশ কয়েকটি জেলাতে। প্রচণ্ড ঠাণ্ডাতে রীতিমত কাহিল হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। হরিয়ানার নারনাউলের তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ছিল ১৪ ডিগ্রিতে। যা স্বাভাবিকের থেকে বেশ কম।

এছাড়াও রাজস্থানে তাপমাত্রা ছিল স্বাভাবিকের থেকে কম। যার ফলে শীতের কামড়ে নাজেহাল সাধারণ মানুষ। জানা গিয়েছে সীতল উত্তর পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে আপাতত কয়েকদিন এই পরস্থিতি চলবে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।