দেশের অন্যতম রাষ্ট্রায়ত্ত ষ্টেট ব্যাংকে কর্মী নিয়োগের জন্য জারি করা হয়েছে বিজ্ঞাপন। জানানো হয়েছে প্রায় ৪০০ বেশি পোষ্টে নিয়োগ করা হবে একাধিক কর্মীদের। আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে ২৩ জুন থেকে । আবেদন জমা দেওয়ার শেষ দিন ১৩ জুলাই। আগ্রহী প্রার্থীদের দ্রুত আবেদন করতে জানানো হয়েছে।

একাধিক পোষ্টে শূন্য পদ থাকার জন্য এই কর্মী নিয়োগ বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে ষ্টেট ব্যাংকের তরফ থেকে। আগ্রহী প্রার্থীরা www.bank.sbi/careers বা www.sbi.co.in/careers এই ওয়েবসাইট থেকে বিস্তারিত তথ্য পেয়ে যাবেন। প্রায় ৪০০ র বেশি পোষ্টে নিয়োগ করা হবে।

যার মধ্যে রয়েছে হেড, সেন্ট্রাল রিসার্চ টিম, ইনভেস্টমেন্ট অফিসার, প্রোজেক্ট ডেভেলপমেন্ট অফিসার,রিলেশানশিপ ম্যানেজার সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ পদ। আবেদন করার জন্য প্রার্থীদের নিজেদের রেজুমে সহ আইডি প্রমাণ পত্র, শিক্ষাগত যোগ্যতার সকল কাগজপত্র এবং কাজের অভিজ্ঞতা সংক্রান্ত সকল কাগজপত্র আপলোড করতে হবে।

ইন্টারভিউয়ের সময়ে প্রার্থীদের সকল কাগজপত্রের আসল নিয়ে আস্তে হবে এবং যাচাই করা হবে। প্রার্থীদের নিজেদের এসবিআইয়ের ওয়েবসাইটে গিয়ে রেজিস্টার করতে হবে প্রথমে। ওয়েবসাইট গুলি হল https://bank.sbi/careers or https://www.sbi.co.in/careers।

এছাড়া প্রার্থীদের অনালিনে নিজেদের আবেদন ফি দিতে হবে। তবেই পুরো প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে। জেনারেল, ওবিসি,ইডবলুএস প্রার্থীদের জন্য ৭৫০ টাকা এছাড়া এসসি এসটি পিডবলুডি প্রার্থীদের জন্য কোন আবেদন ফি দিতে হবে না। প্রার্থীদের বয়স ২৫-৩৫ এর মধ্যে হতে হবে। এছাড়াও প্রার্থীদের এমবিএ,সিএ অথবা পিজিডিএম অথবা পিজিডিবিএম করতে হবে। প্রার্থীদের বেতন ক্রম হবে ৪২০২০-৫১৪৯০।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।