চেন্নাই: স্থায়ী কর্মী নিয়োগের বদলে যেভাবে স্টেট ব্যাংক অ্যাপ্রেন্টিস নিয়োগ করতে চলেছে তার তীব্র সমালোচনা করল অল ইন্ডিয়া স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন। এই সংগঠন ব্যাংকের এই পদক্ষেপকে কম পারিশ্রমিকে শ্রমিক নিয়োগের প্রচেষ্টা বলে আখ্যা দিয়েছে। ব্যাংকের এই পদক্ষেপকে সঠিক অভিমুখ নয় বলে মনে করছে। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এমন প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

দেশের সর্ববৃহৎ ব্যাংক সম্প্রতি অ্যাপ্রেন্টিস নিয়োগের জন্য দরখাস্ত চেয়েছে। পরিকল্পনা অনুসারে গোটা দেশে স্টেট ব্যাংক সাড়ে আট হাজার অ্যাপ্রেন্টিস নিয়োগ করতে চলেছে। এই প্রসঙ্গে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কে এস কৃষ্ণের অভিমত, এই পদক্ষেপ সঠিক অভিমুখ নয়। এর উদ্দেশ্য হল স্থায়ী কর্মী নিয়োগের বদলে স্বল্প মেয়াদে নির্দিষ্ট অল্প বেতনে অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ করা। স্কিল ডেভেলপমেন্ট অথবা প্রশিক্ষণের নাম করে যা করা হচ্ছে তা আদৌ সরল ও উন্নত ব্যবস্থা নয়।

স্টেট ব্যাংকের বিজ্ঞাপণ অনুসারে অ্যাপ্রেন্টিস পদের জন্য যে কোন স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হওয়া প্রার্থী আবেদন করতে পারবে। আবেদনকারীর বয়স হতে হবে ২০ থেকে ২৮ বছর। তাছাড়া ব্যাংক জানিয়েছে, এটা ব্যাংকের কর্মী হিসেবে নিয়োগ নয় এবং ওই নির্বাচিত প্রার্থীকে তিন বছরের প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

ওই তিন বছরের অ্যাপ্রেন্টিস স্টাইপেন্ড বাবদ পাবে প্রথম বছরের প্রতিমাসে ১৫,০০০ টাকা। দ্বিতীয় বছর প্রতিমাসে ১৬,৫০০ টাকা এবং তৃতীয় বছর প্রতিমাসে ১৯,০০০ টাকা। এছাড়া অন্য কোন ভাতা ওই অ্যাপ্রেন্টিস পাবে না।

এইজন্য অনলাইনে পরীক্ষা নেয়া হবে ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসে। স্টেট ব্যাংক যে প্রায় সাড়ে আট হাজার অ্যাপ্রেন্টিস নিয়োগ করবে তাদের মধ্যে অসংরক্ষিত ৩৫৯৫ জন, ওবিসি ১৯৮৮জন, অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল ৮৪৪ জন, তপশিলি জাতি ১৩৮৮জন এবং তপশিলি উপজাতি ৭২৫ জন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।