নয়াদিল্লি: দেশ জুড়ে করোনা আতঙ্কের মধ্যে কেন্দ্রের তরফে নেওয়া হচ্ছে একের পর এক পদক্ষেপ। আর তাতে সহায়তা করে চলেছে একাধিক প্রতিষ্ঠান। করোনা পরবর্তী সময়ে ক্রমেই বেড়েছে ডিজিটাল লেনদেন।

পাশাপাশি ব্যাংকে প্রয়োজন না থাকলে যাওয়ার সংখ্যা কমেছে মানুষের। একাধিক ব্যাংকের তরফে দেওয়া হচ্ছে ডিজিটাল পরিষেবাও। তবে এবারে এসবিআই এবং আইআরসিটিসি সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার কারণে নিয়ে এল কন্টাক্টলেস ক্রেডিট কার্ড।

জানা গিয়েছে আইআরসিটিসি এবং যৌথ ভাবে রেলওয়ে যাত্রীদের জন্য নিয়ে এসেছে এই সুবিধা। এর ফলে সুবিধা হবে যাত্রীদের। সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হবে এই পদক্ষেপের ফলে। জানা গিয়েছে এই কার্ড রুপে প্লাটফর্মে গ্রহন করা হবে। এই কার্ড ব্যবহার করে টিকিট কাটলে গ্রাহকেরা পাবেন একাধিক সুবিধা। রিটেল, ডাইনিং থেকে শুরু করে একাধিক ক্ষেত্রে থাকছে ছাড়ের সুবিধা।

এছাড়াও ১ ক্লাস এসি, ২ এসি,বা ৩ এসি বুকিং এর উপরে থাকছে ১০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়। এছাড়াও অনলাইন কেনাকাটার উপরে থাকছে ছাড়ের সুবিধা। থাকছে ই কমার্স সাইটের উপরে ছাড়ের কুপন। এছাড়া ৩১ মার্চ পর্যন্ত কোন জয়েনিং ফি দিতে হবে না।

এছাড়াও থাকছে অতিরিক্ত বেশ কিছু সুবিধা। চারটি কমপ্লিমেন্টারি দেশের যে কোন স্টেশনের লাউঞ্জ ব্যবহারের সুবিধা। পাশপাশি যদি এই কার্ড ব্যবহার করে টিকিট ক্যান্সেল করতে চান সে ক্ষেত্রে টোটাল টাকার ১.৮ শতাংশ চার্জ কাটা হবে।

অর্থাৎ করোনা পরবর্তী সময়ে যেখানে গোটা দেশ কার্যত এক নতুন স্বাভাবিকের দিকে এগিয়ে চলেছে সেখানে যাতে যাত্রীদের সমস্যা না হয় সেই বিষয়টি মাথাতে রেখে এই পদক্ষেপ নেওয়া নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ। এর ফলে সাধারণের নিরাপত্তার বিষয়টি একদিকে খেয়াল রাখা সম্ভব হবে। অন্যদিকে দিজিয়াতল দুনিয়াতে ভারতীয় রেলের এই পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে বলে মনে করা হচ্ছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.