স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ : ফের সায়ন্তন বসুর নিশানায় তৃণমূল কংগ্রেস। রবিবার মালদহের নেতাজি সুভাষ রোডে চায়ে-পে চর্চার অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে আবারও শাসক শিবিরকে একহাত নিলেন তিনি।

রবিবার দলীয় সংগঠনের সদস্যদের সঙ্গে চায় পে চর্চার অনুষ্ঠানে যোগ দানের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, “পুজোর সময় যখন ঘুরতে যেতাম তখন দেখতাম ট্রেনের রিজার্ভেশনের জন্য লম্বা লাইন। এখন মাত্র ৪ কেজি আলুর জন্য ৩৫০জন মানুষ ভোরবেলা থেকে লাইন দিয়েছে।”

তিনি এও বলেন, “পশ্চিমবঙ্গ সরকার এত অপদার্থ সরকার কৃষকের কাছ থেকে ৫ টাকা ১০ টাকা কিলো দরে আলু কিনে নিচ্ছে। আর খোলাবাজারে তা ৪৫ টাকা ৫০ টাকা কিলো দরে বিক্রি হচ্ছে। মানুষ লাইন দিচ্ছে তিন ঘন্টা ৪ ঘন্টা ধরে ২৫ টাকা কিলো আলু কেনার জন্য। এর থেকে চূড়ান্ত অরাজকতা হয়না।”

“মধ্যস্বত্বভোগী তৃণমূলের দালাল ফরেদের গোডাউন গুলিতে যদি এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ বা ইবি যদি আজকে হানা দেয় তাহলে কুইন্টালে কুইন্টালে টনে টনে আলু পাওয়া যাবে। সেই টনে টনে আলু কেন খোলাবাজারে বিক্রি করা হচ্ছে না। তার কারণ হচ্ছে পাঁচ টাকার আলু খোলা বাজারে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এই ৪০ টাকা প্রফিট তৃণমূলের কাছে চলে যাবে। তার জন্যই এই ঘটনা ঘটানো হচ্ছে।”

তিনি আরও বলেন, “কয়লা পাচার,লোহা পাচার,গরু পাচার কাটমানি নিয়ে সবকিছু শেষ হয়ে গিয়েছে।এখন জিনিসের দাম বাড়িয়ে কাটমানি নিয়ে ভোটের খরচা করতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। নির্বাচন যত এগিয়ে আসবে আলুর দাম ১০০ টাকা কেজিতে নিয়ে যাবে তৃণমূল কংগ্রেস। শুধুমাত্র নিজেদের ভোটের খরচ তুলতে এই কাজ করছে।”

পাল্টা জেলা তৃণমূলের কো-অর্ডিনেটর দুলাল সরকার বলেন, “ভিত্তিহীন অভিযোগ। কয়লা পাচার গরু পাচার এগুলো সেন্টাল গর্ভমেন্টের বিষয়। এই ইস্যু নিয়ে মানুষের কাছে গেলে মানুষ তা ভালো চোখে নেবেনা।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।