কলকাতা: ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ১৭৩-এ। আতঙ্কে সারা দেশের মানুষ। আর এই করোনা আতঙ্কের মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরছে একের পরে এক গুজবে ভরা পোস্ট। সেই প্রসঙ্গেই এবার ভক্তদের সচেতন করলেন অভিনেতা সৌরভ দাস।

সৌরভ ইনস্টাগ্রামে ভিডিওটি শেয়ার করেছেন। অভিনেতা বলছেন, কোভিড ১৯ নিয়ে অনেক ভুল তথ্য ঘুরছে। আমি নিজেও একটি ভিডিও শেয়ার করি। নারায়ণা হাসপাতালের চিকিৎসক দেবী শেট্টির ছবি সমেত ভিডিওটি ঘুরছে। সঙ্গে একটি ভয়েস ক্লিপ রয়েছে। আমি ভিডিওটি শেয়ার করার সঙ্গে সঙ্গে একজন আমায় জানান এটি দেবী শেট্টির গলা নয়। পরে ইউটিউবে গলা মিলিয়ে দেখি ওটি মোটেই দেবী শেট্টির গলার স্বর নয়। আমি ভিডিওটি ডিলিট করি সঙ্গে সঙ্গে। ভয়েস ক্লিপে বলা হচ্ছে, মাস্ক পরার দরকার নেই। বরং বাড়িতে বসেই দেখুন ৮ দিন। নিজে থেকেই সব ঠিক হয়ে যেতে পারে। এতই যদি সোজা হতো তা হলে কি হু করোনা কে মহামারী ঘোষণা করত!

সৌরভ বলছেন, একটু দেখে শুনে শেয়ার করুন। আমার নিজের উপরেও রাগ হয়েছে এই রকম একটি ভিডিও শেয়ার করেছি বলে। তাই সঙ্গে সঙ্গে ডিলিট করে দিয়েছি। এছাড়াও মানুষকে সাবধান থাকার পরামর্শ দিয়েছেন সৌরভ। অভিনেতা বলছেন, প্রতি ২ ঘণ্টা অন্তর হাতটা ধুয়ে নিন। নাকে মুখে হাত দেবেন না। প্রতি এক ঘণ্টা অন্তর গরম চা বা জল খান। মুখে মাস্ক পরুন। আমি এক্সপার্ট নই। তবে এটুকু মেনে চলুন।

সরকার থেকে মানুষকে বাড়িতে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাবলিক গ্যাদারিং-এও মানুষকে না থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও অনেকে এখনও রাস্তায় বেরোচ্ছেন। সেই প্রসঙ্গে সৌরভ বলছেন, আমি একটু বেশিই বিরক্ত যে এরকম মহামারীর সময়েও মানুষ ঘুরে বেড়াচ্ছে। নিজের, পরিবারের ও দেশের কথা ভাবুন। বাড়িতে থেকেই এই লড়াইটা করুন।

সৌরভ জানিয়েছেন, দোকানে মাস্ক পাওয়া যাচ্ছে না। তাই বেশ কিছু মাস্ক একসঙ্গে কিনে পাড়ার মানুষকে তিনি দিয়েছেন। সৌরভের কথায়, যাঁদের ছেলেমেয়েরা বাইরে। আমার আশপাশে আছেন কিন্তু খুবই অসুবিধায় আছেন, তাঁরা আমায় জানান। আমার পেজে বা মেসেঞ্জারে জানান। আমি চেষ্টা করব পৌঁছে গিয়ে সাহায্য় করার।

অভিনেতার এই পদক্ষেপ প্রশংসা করেছেন নেটিজেনরা। প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে ভারতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭৩ ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের। প্রত্যেকেই প্রবীণ বলে জানা যাচ্ছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ