রিয়াধ: চাঞ্চল্যকর দাবি সৌদি আরব সরকারের৷ জেড্ডা শহরে মার্কিন কনস্যুলেটের সামনে আত্মঘাতী বিস্ফোরণে মৃত জঙ্গি আদতে ভারতীয় নাগরিক৷ ডিএনএ টেস্টের রিপোর্ট থেকেই এমন তথ্য মিলেছে৷ জানিয়ে দিল সৌদি আরব সরকার৷ দু’বছর আগে এই নাশকতায় কেঁপে গিয়েছিল আরব দুনিয়া৷ প্রাথমিকভাবে উঠে এসেছিল আত্মঘাতী জঙ্গি একজন পাকিস্তানি৷

জেড্ডা শহরের বিস্ফোরণের পর কাগজির ছবি প্রকাশ করে আরব গোয়েন্দা বিভাগ৷ সেই সূত্র ধরে এনআইএ ও মহারাষ্ট্র এটিএস হামলাকারী সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে৷ বিস্তারিত তথ্য জানতে বিভিন্ন ডিএনএ নমুনা সৌদি আরবে পাঠানো হয়৷ সেই নমুনা থেকেই প্রমাণ হয়েছে কাগজি একজন ভারতীয় নাগরিক৷

২০১৬ সালের ৪ জুলাই৷ পরপর বিস্ফোরণ ঘটানো হয় সৌদি আরবের জেড্ডা, কাতিফ ও মদিনায়৷ এতে মৃত্যু হয় চারজনের৷ সেই ঘটনার তদন্তে নামে সৌদি প্রশাসন৷ রিপোর্টে বলা হয়েছে, লস্কর ই তইবা জঙ্গি গোষ্ঠীর সদস্য কোনও পাকিস্তানি নাগরিক নয়৷ সেই জঙ্গি ভারতীয়৷ তার নাম ফইয়াজ কাগজি৷ আরব থেকে রিপোর্ট পেতেই নড়ে চড়ে বসেছে ভারতের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনআইএ৷ ভারতের গোয়েন্দা বিভাগের রিপোর্ট, লস্কর জঙ্গি কাগজি প্রথমে গোপনে বাংলাদেশ পালিয়ে যায়৷ সেখান থেকে পাকিস্তান চলে যায়৷

রিপোর্টের ভিত্তিতে জানানো হয়েছে, লস্কর জঙ্গি ফইয়াজ কাগজি কয়েকটি জঙ্গি কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিল৷ জানা গিয়েছে, কাগজি মহারাষ্ট্রের বাসিন্দা৷ ২০১ সালের পুনের জার্মান বেকারি বিস্ফোরণ ও ২০১২ সালের জেএম রোডে বিস্ফোরণের মামলায় সে জড়িত৷ সূত্রের খবর, লস্কর জঙ্গি কাগজি ২০০৬ সালের ঔরঙ্গাবাদে বেআইনি অস্ত্র চালান মামলায় জড়িত৷ ২০৮সালের মুম্বই হামলার সে একজন অস্ত্র চালানকারী৷ ইন্টারপোল ওয়ান্টেড তালিকায় তার নাম আছে৷ তবে ২৬/১১ মুম্বই হামলায় সরাসরি জড়িত ছিলা না কাগজি৷ গোয়েন্দাদের ধারনা, এই লস্কর জঙ্গির মদতেই পাকিস্তান থেকে ভারতে প্রবেশ করেছিল আজমল কাসভ সহ মুম্বই হামলার জঙ্গিরা৷