ওয়াশিংটন:  বিতর্কিত দক্ষিণ চিন সাগর নিয়ে ফের উত্তেজনা বাড়ছে! অত্যাধুনিক গোয়েন্দা বিমান শাহনশি কেজে-৫০০ বিতর্কিত দক্ষিণ চিন সাগরের হাইনান দ্বীপে মোতায়েন করল চিন।  স্যাটেলাইট থেকে তোলা ছবিতে বিতর্কিত এই এলাকায় এই বিমানকে একাধিকবার চক্কর কাটতে দেখা গিয়েছে।  আকাশ থেকে শত্রু  দেশের  বিমানের উপস্থিতির বিষয়ে আগাম সতর্ক করতে সক্ষম কেজে-৫০০য়ে রাডার ডিশ রয়েছে বিমানের মধ্যে। এতে বিমানকে চিহ্নিত করার ক্ষেত্র ভুল হওয়ার আশংকা থাকে না।

কেজে-৫০০ দিয়ে চারশ’ ৭০ কিলোমিটারের মধ্যে এক সঙ্গে ৬০টি বিমানের গতিবিধির ওপর নজর রাখা যায়।  এই বিমানের রাডারকে নজরদারি এবং সাধারণ গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহের কাজেও ব্যবহার করা যায়।  বিতর্কিত দক্ষিণ চিন সাগরের ওপর চিনের পাশাপাশি অনেক দেশই ভৌগলিক অধিকার দাবি করছে।  বিরোধপূর্ণ এই এলাকায় কেজে-৫০০ বিমানকে চিন নানা ভাবে ব্যবহার করতে পারবে।  হাইনান ঘাঁটিতে এই প্রথম এই বিমান মোতায়েন করা হল।  শুধু একটা নয়, ঘাঁটিতে একাধিক বিমানের উপস্থিতি স্যাটেলাইটের ধরা পড়েছে।

এই ছবি ধরা পড়তেই সতর্ক আমেরিকা সহ তাঁর মিত্রদেশগুলি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.