আবারো বি টাউনে অভিনেতা শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের পদার্পণ। এর আগেও যতবার তিনি বলিউডে কাজ করেছেন তার স্বাক্ষর হয়ে রয়েছে তামাম বি টাউন এবং বাংলা সিনেমা প্রেমিদের মনে।

পরিচালক সুজয় ঘোষ এর ছবি কাহানিতে ‘বব বিশ্বাস’ এমন এক চরিত্র যে চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবে বাংলা সিনেপ্রেমীদের মনে ।যে কিনা নির্ভেজাল হাতে ফোন, আর কালোফ্রেমের চশমা পরে ‘একটি এক মিনিট ,নমস্কার’ বলার পরেই ঠান্ডা মাথায় খুন করে ফেলতে পারে তার নেক্সট কনস্ট্রাক্টেড টার্গেটকে।

নেট চরিত্র ধরিয়ে দিয়েছিল তৎকালীন ফিল্ম দর্শকদের হৃদয়ে। তারপর সেই নদীর জল রয়েছে অনেক দূর অর্থাৎ বলিউডের শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় বারংবার প্রমাণ করেছেন তার অভিনয় দক্ষতা। তা সে, পরিচালক অনুরাগ বাসুর জাগ্গা জাসুস হোক বা গত বছর মুক্তি পাওয়া ‘দিল বেচারা’।

জগ্গা জাসুস’, ‘দিল বেচারা’ র মত হিন্দি ছবিতেও মন জয় করেছেন অভিনেতা। এবার তাঁকে দেখা যাবে অনুরাগ কাশ্যপের ‘দুবারা’ সিরিজে।এই সিরিজের জন্য তিনি আপাতত পৌঁছে গেছেন মুম্বাইতে।দিন কয়েক আগেই পুনেতে শুরু হয়েছে এই সিরিজের শুটিং। শুক্রবার রাতে কলকাতায় ফিরবেন শাশ্বত।মাত্র দু’দিন থেকেই ফের পাড়ি দেবে শুটিংয়ের জন্য।

পুনেতে পৌঁছে হোটেলে যেতেই, দারুণ সারপ্রাইজ ছিলো অভিনেতার জন্য।হোটেলের ঘরে ঢুকেই শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের জন্য অপেক্ষা করছিল বিশাল আয়োজন। অভিনেতা শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়কে নিজেদের টিমে পেয়ে, পেয়ে সম্মান জানালো অনুরাগ কাশ্যপের ‘দুবারা’র টিম। ভালোবাসা ও সম্মান পেয়ে আপ্লুত শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় (Saswata Chatterjee)।

শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় এর টিম ‘দুবারা’র তরফ থেকে পাওয়া উপহারের ছবি শেয়ার করেছেন ।লিখেছেন, ”আমি যখন হোটেলের ঘরে প্রবেশ করলাম আমার জন্য এই উপহারটাই অপেক্ষা করছিল। পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের টিম আমার প্রতি এই ভালোবাসা ও সম্মানটাই দেখিয়েছে।

দুবারা-র টিমে যোগ দিলাম।” প্রসঙ্গত, ‘দুবারা’ ছবিতে তাপসী পন্নুকে দেখা যাবে। ‘মনমর্জিয়া’র পর দ্বিতীয়বার অনুরাগ কাশ্যপের সঙ্গে জুটি বাঁধছেন তাপসী। ছবির প্রযোজনা করছেন একতা কাপুর।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।