বেঙ্গালুরু: ১২ বছর বয়সেই প্রতিভার পরিচয় দিয়েছিলেন সরফরাজ খান৷ হ্যারিস শিল্ডে রিজভি স্প্রিংফিল্ডের হয়ে ৪৩৯ রানের ইনিংস খেলে রেকর্ড গড়ে নজর কেড়েছিলেন মুম্বইয়ের ডানহাতি ব্যাটসম্যান৷ আইপিএল নাইনে মঙ্গলবার চিন্নাস্বামীতে সরফরাজের ব্যাটিং মনে করাল ‘লগন’-এর গুরানকে৷

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্সের আঠারোর্ধ্ব ডানহাতি ব্যাটসম্যানের ১০ বলে ৩৫ রানের অপরাজিত ইনিংস চমকে দিয়েছে ক্রিকেটবিশ্বের তাবড় ব্যাটসম্যানদেরও৷ সরফরাজ আইপিএলে এমন এক দলে রয়েছেন, যে দলে খেলছেন বিরাট কোহলি, ক্রিস গেইল,এবি ডে’বিলিয়ার্সের মতো বিস্ফোরক ব্যাটসম্যানরা৷ সেই দলেই এই ‘ক্ষুদে’ ব্যাটসম্যানের স্ট্রাইকরেট ৩৫০৷ এই ইনিংস দেখার পর সরফরাজকে ‘অবিশ্বাস্য ইয়ং ম্যান’ অ্যাখ্যা দেন সতীর্থ শেন ওয়াটসন৷ প্রাক্তন অজি অল-রাউন্ডার আরও বলেন,‘ শট নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা ওর মতো কোনও ইয়ং ট্যালেন্টের আগে কোনও দিন দেখিনি৷’ ১০ বলের ইনিংসে পাঁচটি বাউন্ডারি ও দু’টি ওভার বাউন্ডারি মারেন সরফরাজ৷ যে ভাবে বল গুলি বাউন্ডারিতে পাঠালেন তাতে লগনের গুরনের ব্যাটিং মনে করালেন তিনি৷ ইনিংসের ১৯ তম ওভারে ভুবনেশ্বর কুমারকে ২৮ রান নেন সরফরাজ৷

আইপিএল এইটের নিলামে ৫০ লক্ষ টাকায় সরফরাজকে কেনে বিজয় মালিয়ার ফ্র্যাঞ্চাইজি৷ ভুবি’র ইয়র্ক ডেলিভারিকেও বাউন্ডারিতে পাঠান আইপিএল-এ সবচেয়ে তরুণ ক্রিকেটার৷ চলতি বছর অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে ভারতের জার্সি দারুণ পারফর্ম করেন৷ ছ’ ম্যাচে ৩৫৫ রান করেন৷ তবে ২০১৫-১৬ মরশুমে ঘরোয়া ক্রিকেটে মুম্বই ছেড়ে উত্তরপ্রদেশে পাড়ি দেন সরফরাজ৷ কিন্তু এদিন রয়্যাল জার্সিতে আইপিএল-এ তাঁর বলের ইনিংস বহুদিন মনে থাকবে৷ ১০ বলে সরফরাজের রান ১,৪,৪,৬,৪,৪,৬,২,০,৪৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।