কলকাতা: সারদা মামলায় চাঞ্চল্যকর মোড়! গ্রেফতারের আশঙ্কা প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রীর স্ত্রীয়ের। আর সেই আশঙ্কা থেকে আগাম জামিন চেয়ে হাইকোর্টের দ্বারস্থ নলিনী চিদাম্বরম। বিচারপতি জয়মাল্য বাগচির বেঞ্চে এই সংক্রান্ত আবেদন জানিয়েছেন। নলিনী চিদাম্বরম তাঁর আইনজীবী মাধ্যমে এই আবেদন জানিয়েছেন। হাইকোর্ট সূত্রে খবর, চলতি সপ্তাহেই বিচারপতি জয়মাল্য বাগচির এজলাসে এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি হতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত মাসেই বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থা সারদার সঙ্গে যোগের কারণে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের স্ত্রীর বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেয় সিবিআই। কলকাতার সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে চার্জশিট পেশ করে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। পি চিদম্বরমের স্ত্রী নলিনীর বিরুদ্ধে সারদার টাকা আত্মসাৎ ও প্রতারণার অপরাধে চার্জশিট পেশ করা হয়েছে।

সারদার বৃহত্তর ষড়যন্ত্রের তদন্ত করছে সিবিআই। বেআইনী অর্থলগ্নি সংস্থা সারদার সঙ্গে আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ আনা হয়েছে নলিনী চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে। ২০১০ থেকে ২০১২ সালের মধ্যে সারদার থেকে তিনি ১ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা নিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, সারদা কর্ণধার সুদীপ্ত সেনের সিবিাইকে লেখা চিঠি থেকে আইনজীবী নলিনী চিদাম্বরমের নাম উঠে আসে৷ এই মামলাতেই গ্রেফতার করা হয় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর প্রাক্তন স্ত্রী মনোরঞ্জনা সিংকেও৷

ফাইল ছবি

তাকে জিজ্ঞাসাবাদে উঠে আসে নলিনী চিদাম্বরমের নাম৷ কেন্দ্রীয় সংস্থার গোয়েন্দারা জানতে পারেন সারদার নথি তৈরির ক্ষেত্রে ও উত্তরপূর্বে টিভি চ্যানেল তৈরিতে সুদীপ্ত সেনকে সাহায্য করেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমের স্ত্রী নলিনী৷ সারদা মামলার তদন্তে ২০১৬ লাসে প্রথম জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠানো হয় নলিনী চিদাম্বরমকে৷ তাঁর নাম সংস্থার আইনজীবী হিসাবে নথিভূক্ত ছিল৷ ফলে সংস্থার বেআইনী কাজের হদিশ নলিনীর কাছে থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷ সারদা মামলায় ষষ্ঠ সাপ্লিমেন্টরি চার্জশিট চার্জশিট দেওয়া হয়৷ নলিনী ছাড়াও এই চার্জশিটে নাম রয়েছে সুদীপ্ত সেন এবং অনুভূতি প্রিন্টার্স ও পাবলিকেশনের৷

আর এরপরেই প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর স্ত্রীয়ের গ্রেফতারের আশঙ্কা। আর সেই আশঙ্কা থেকেই কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ নলিনী চিদাম্বরম।