হাওড়া: চার দিনের জন্য কোনা এক্সপ্রেসওয়ের সাঁতরাগাছি সেতু আংশিক বন্ধ রেখে শুক্রবার সকাল থেকে সেতু মেরামতির কাজ শুরু হয়েছে। শুক্রবার থেকে সোমবার পর্যন্ত আংশিক বন্ধ থাকবে এই গুরুত্বপূর্ণ সেতু। সেতু মেরামতির জেরে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে শুক্রবার সকাল থেকেই। ব্রিজের একাংশ বন্ধ থাকার জন্য সাঁতরাগাছি-কলকাতা রুটের নিত্যযাত্রীদের এই ক’দিন ভোগান্তি দেখা দিয়েছে।

হাওড়া সিটি ট্রাফিক পুলিশ সূত্রের খবর শুক্রবার সকাল আটটা থেকে সোমবার রাত আটটা পর্যন্ত কোনও পণ্যবাহী গাড়ি সাঁতরাগাছি ব্রিজ হয়ে কোনা এক্সপ্রেসওয়েতে যেতে পারবে না।ওই চার দিন রাত দশটা থেকে পরের দিন সকাল সাতটা পর্যন্ত ২নং ও ৬নং জাতীয় সড়ক থেকে আসা কলকাতাগামী পণ্যবাহী গাড়িকে ঘোরানো হবে হাওড়া-আমতা রোড ও জি টি রোড ধরে।

আরও পড়ুন : রাজ্যের ৩০০ কোটির প্রজেক্ট উদ্বোধন করে দিলেন মোদী, তোপ মমতার

এছাড়াও জানা গিয়েছে, আলমপুর থেকে কোনও পণ্যবাহী গাড়িকে আন্দুল রোডের দিকে যেতে দেওয়া হবে না। রাত দশটা থেকে পরের দিন সকাল সাতটা পর্যন্ত বন্দরগামী সব পণ্যবাহী গাড়ি কলকাতার দিকে যেতে পারবে। ওই একই সময়ে গাড়িগুলি কলকাতা থেকে আসতে পারবে। কলকাতার দিক থেকে আসা সব পণ্যবাহী গাড়িকে দ্বিতীয় হুগলি সেতুর টোল প্লাজা থেকে আন্দুল রোড হয়ে ঘোরানো হবে। ছোটো ও মাঝারি গাড়িগুলিকে আন্দুল রোড ও হাওড়া-আমতা রোড হয়ে ঘোরানো হবে।

সিটি ট্রাফিক পুলিশ সূত্রের খবর এই চারদিন কলকাতা থেকে আসা জাতীয় সড়কমুখী সব মালবাহী গাড়ি ঘুরিয়ে দেয়া হবে হাওড়া আন্দুল রোড দিয়ে। এরজন্য ব্যবহার করা হবে হাওড়া আমতা রোড। এছাড়া কলকাতামুখী বড় গাড়ি এবং মালবাহী গাড়ি ৬ নম্বর জাতীয় সড়ক থেকে বাঁকড়া দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন : সিটের অন্য সদস্যদের জেরায় হাজিরা নিয়ে জল্পনা

সাঁতরাগাছি সেতুর একাংশ বন্ধ থাকায় বাকি অংশ দিয়ে ছোট গাড়ি ও যাত্রীবাহী বাস চলাচল করতে পারবে। তবে এতে চূড়ান্ত ভোগান্তির আশঙ্কা করা হচ্ছে। যেহেতু আগামী ১২ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে রাজ্যে মাধ্যমিক পরীক্ষা, তাই তার আগেই গুরুত্বপূর্ণ এই সেতুর কাজ শেষ করতে বলা হয়েছে।

গত ২০১৬ সালের মার্চ মাসে ১৬ দিন সেতুটি বন্ধ রেখে সমস্ত এক্সপ্যানশন জয়েন্ট বদলে ফেলা হয়েছিল। ব্রিজের বাকি অংশও মেরামত হয়েছিল ওই সময়ে। সে সময় প্রায় টানা ১৬ দিন ধরে তীব্র যানজটে নাজেহাল হতে হয়েছিল সাধারণ মানুষকে। এবার চার দিনের জন্য আংশিক বন্ধ রেখে সেতুর মেরামতির কাজ হচ্ছে। এক্সপ্যানশন জয়েন্টের ফাটল চিহ্নিত করেই মেরামত শুরু হয়েছে।