সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা: নতুন প্রজম্মের কাছে খেলা বলতে ডিজিটাল গেম৷ ঘরে বসে মুঠো ফোনে মগ্ন শিশু জানে না লাট্টু, ডাংগুলি, কানামাছি, খো খো কিংবা পিট্টুর খেলা কী! আর এই হারিয়ে যাওয়া ছোটবেলার খেলার উপহার নিয়েই এবার বড়দিনের আগে হাজির সান্তা দাদু৷

প্রতি বছর বড়দিনের অন্যতম বড় আকর্ষণ হলো সান্তা ক্লজ। আর এই সান্তা দাদু বলতে আমরা যাকে চিনি, তিনি হলেন লাল রঙের পোশাক ও চোঙা আকৃতির লম্বা টুপি পরা এক বৃদ্ধ লোক৷ যার আবার সাদা চুল ও লম্বা দাড়ি আছে৷ যে কিনা স্লেজ গাড়িতে চড়ে, কাঁধে উপহার ভর্তি ঝোলা নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ছোটদের উপহার দেন৷

ছোটদের বিশ্বাস, ক্রিসমাস ডের আগের রাতে তাদের বাড়ি এসে উপহার দিয়ে যাবেন সান্তা দাদু৷ তাই সান্তা ক্লজকে নিয়ে ছোটদের খুবই উৎসাহ৷ সে কখন আসবে তার প্রিয় উপহার নিয়ে, তারই অপেক্ষায় কেটে যায় তাদের শীতের বেলা৷

বড় দিনের প্রাক্কালে উপহার নিয়ে সান্তা ক্লজের আসার খবর সল্টলেকে ছড়িয়ে পরে৷ তাই রবিবার সল্টলেকের একটি মাঠে হাজির হয়ে যায় ছোটরা৷ হাতের কাছে সান্তা দাদুকে পেয়ে উপহারের জন্য তাকে ঘিরে ধরে ছোটরা৷ সান্তাও তার ঝুলি থেকে এক এক করে বের করে উপহার৷ সে উপহার কী জানেন? তা হল হারিয়ে যাওয়া ছোটবেলার রঙ্গিন স্মৃতি৷

আজকের শিশুদের কাছে যা স্বপ্ন৷ খেলার উপহার বলতে তারা বোঝে ভিডিও, মোবাইলে গেম, কার্টুন৷ এর বাইরেও যে শিশুদের খেলা আছে, তা তারা জানে না৷ যেমন ডাংগুলি, সাতচাড়া, কড়িখেলা, এক্কাদোক্কা, লাট্টু খেলা, মার্বেল, চাকা বা রিং ইত্যাদি। যা বড়দের নস্টালজিয়া, ছোটদের কাছে ইতিহাস৷ একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এই সুন্দর মুহুর্তের আয়োজন করেছিল৷ সেখানে হাজির ছিলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী লক্ষীরতন শুক্লা, মন্ত্রী সাধন পান্ডে ও অভিনেত্রী সায়ন্তনী গুহঠাকুরতা৷

আসলে কোথায় যেন হারিয়ে গেছে আমাদের সেই দিনগুলো, হারিয়ে গেছে শৈশবের খেলা, দিন দিন ব্যস্ততার ভিড়ে হারাচ্ছে শিশুদের শৈশব৷ অল্প বয়সে মোবাইল আর ট্যাব, ল্যাপটপ আর ইন্টারনেট কেড়ে নিয়েছে শৈশবের খেলা৷

শিশুর দু’বছর হলেই প্লে স্কুলে ভরতি৷ সেই থেকে পড়াশুনো শুরু৷ সকাল হলেই বইয়ের বোঝা নিয়ে যাওয়া, পড়ার চাপ, গান, নাচ, আঁকা, সব মিলে শিশুরা এতই ব্যস্ত যে বাড়ির বাইরে গিয়ে খেলাধুলার সময় নেই৷

তারই মাঝে সান্তা দাদুর এই উপহার যেন শৈশব ফিরিয়ে দিল কচিকাঁচাদের৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ