স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আইপিএস অর্ণব ঘোষ, বিধাননগর দক্ষিণ থানার এসআই আই আর মোল্লার পর শুক্রবার দুপুরে সল্টলেকের সিবিআই দফতরে হাজির সিআইডি’র ডিএসপি শঙ্কর ভট্টাচার্য৷ সারদা চিটফান্ডকাণ্ডের তদন্তে রাজ্য সরকার গঠীত বিশেষ তদন্তকারী দলের সদস্য ছিলেন তিনি৷

সারদা চিটফান্ড তদন্তের জাল গোটাতে তৎপর কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা৷ রাজীব কুমার থেকে সিটের অন্যসব সদস্যদেরও জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে৷ এর আগে সিটের সদস্য পুলিশ কর্মী প্রভাকর নাথকে তলব করে সিবিআই৷ দিন কয়েক আগেই কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চালায়৷ এবার সিটেরই সদস্য শঙ্কর ভট্টাচার্যকেও ডেকে পাঠানো হল৷

আরও পড়ুন: সারদা তদন্তের আরও ২ ট্রাঙ্ক নথি এল সিবিআই অফিসে

সিটের প্রধান রাজীব কুমার ও বিধাননগর কমিশনাটের তৎকালীন গোয়েন্দা প্রধান সিটের নিচুতলার পুলিশ কর্মীদের কি নির্দেশ দিতেন তা জানতে চাওয়া হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷ এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে সারদার লাল ডায়িরী ও পেনড্রাইভ সমন্ধেও৷

এদিকে সারদা মামলার তদন্তে আদালতের নির্দেশে রাজ্য সরকার গঠীত সিটের প্রধান রাজীব কুমারকে আগেই জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়েছে সিবিআই৷ ফের তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হলেও সেখানে যাননি তিনি৷ আদালতের রায়ে আপাতত ১০ই জুলাই পর্যন্ত গ্রেফতার করা যাবে না রাজীব কুমারকে৷ তবে, কলকাতার মধ্যেই থাকতে হবে তাঁকে, প্রত্যেকদিন তাঁর হাজিরা নেবেন সিআইডি আধিকারিকরা৷

এদিকে, এতদিন সিবিআই তলব পেয়ে না এলেও বুধবার সিজিও দফতরে হাজির হন সিটের অন্যতম সদস্য আইপিএস অর্ণব ঘোষ৷ পর পর দু’দিন তাঁকে মোট ১৬ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ চালায় সিবিআই৷ এদিনও তিনি হাজির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার দফতরে৷ তাঁর কাছ থেকে রাজীব ঘোষের নির্দেশ ও সিটের কার্যকলাপ সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়৷

এর আগে গত ডিসেম্বরে সারদা কান্ডে এ রাজ্যের চার তদন্তকারী অফিসারকে তলব করে সিবিআই৷ যাদের কে তলব করা হয় তাঁরা ছিলেন অর্ণব ঘোষ, দিলীপ হাজরা, শঙ্কর ভট্টাচার্য, প্রভাকর নাথ৷ তারও আগে এদেরকে নোটিশ পাঠানো হয়েছিল৷ কিন্তু তারা সিবিআই দফতরে আসেননি৷

আরও পড়ুন: BREAKING: ঘোষণা হল মোদীর সভায় কার হাতে কোন মন্ত্রক

অন্যদিকে, ফের সিবিআই দফতরে এল সারদা মামলার নথি। শুক্রবার সকালে আরও দুই ট্রাঙ্ক নথি এসেছে সিজিও কমপ্লেক্সে। এরআগে বৃহস্পতিবারও ২ ট্রাঙ্ক নথি সল্টলেক সিজিও কমপ্লেক্সে সিবিআই দফতরে পৌঁছে দেয় বিধাননগর কমিশনারেটের পুলিশ কর্মীরা।

আসলে সারদা তদন্তে গঠিত সিটের প্রধান ছিলেন রাজীব কুমার আর অর্ণব ঘোষ ছিলেন কার্যত সেকেন্ড ইন কম্যান্ড। সিবিআই সূত্রে খবর, সারদা কেলেঙ্কারির তদন্তে তখন বহু তথ্যপ্রমাণ জোগাড় করেছিলেন অর্ণব ঘোষ। তাই তাঁকে যখন জিজ্ঞাসাবাদ প্রক্রিয়া চলছে, তখনই ২ ট্রাঙ্ক ভরতি সারদা মামলার নথি সিবিআই অফিসে যাওয়া অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।