সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় : স্বদেশ বসু সহধর্মিনী নিজের হাতে দক্ষিণ কলকাতায় দুস্থদের পরিষেবা দেওয়ার জন্য তৈরি করেছিলেন স্বদেশ বসু হাসপাতাল। সেই মহান কাজ আজও চলছে। এবার স্বাস্থ্যকর্মীদের বিশেষ সম্মান জানাবেন তাঁরা। উদ্দেশ্য। বাঁধবেন স্পেশ্যাল রাখীর বন্ধনে। করোনার সময় ওরাইতো সমাজকে আগলে রেখেছে। তাই ওদের রাখী বন্ধনে আরও একটু কাছের করে নেওয়া।

করোনা পরিস্থিতিতে একের পর এক হাসপাতাল বন্ধ।  আজও এখানে চিকিৎসা হচ্ছে কখন কখন সম্পূর্ণ বিনা পয়সায় কখন মাত্র ৭০ টাকার বিনিময়। করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসা করতে গিয়ে আক্রান্ত একের পর এক স্বাস্থ্যকর্মীরা। মৃত্যু ঘটছে অনেকের। আক্রান্ত বহু। ফিরে এসে অনেকে আবার নামছেন লড়াইয়ের ময়দানের। এমন ফ্রন্ট ফাইটারদের সব থেকে আগে সুস্থ রাখতে হবে।

স্বদেশ বসু  হাসপাতালের তরফে তাই জয়ন্ত ভদ্রের সিদ্ধান্ত স্পেশ্যাল রাখী বন্ধনের। ডাক্তার নার্স ভাই বোনদের জন্য  তৈরি হয়েছে স্যানিটাইজেশন অটোমেটিক রাখি। করোনা থেকে রক্ষার উদ্দেশ্যে ডাক্তার নার্স ভাই-বোনদের হাতে বাঁধা হবে এই রাখি।  বলা যেতে পারে খুশির রাখি উৎসবে ওই রাখী হবে ওদের রক্ষাকবচ। জয়ন্ত বাবুর উদ্যোগে নিজের  তৈরি রাখি কাল বাধা হবে স্বাস্থ্যকর্মীদের হাতে।

সম্প্রতি এক দিনে বেলেঘাটা আইডিতে করোনায় আক্রান্ত ২৫ জন নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী। যার ফলে হাসপাতালের পরিষেবার প্রভাব পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করেছিল স্বাস্থ্যভবন। আক্রান্তদের মধ্যে ছিলেন ৭ জন নার্স। আক্রান্তদের মধ্যে ৫ জনের উপসর্গ বাড়াবাড়ি থাকায় তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকিদের পাঠানো হয় আইসোলেশনে। কলকাতায় হাসপাতালে করোনার সংক্রমণ নতুন কিছু নয়,এনআরএস, মেডিক্যাল কলেজ-সহ একাধিক সরকারি হাসপাতালে একের পর এক চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হয়েছে।  তাদের মধ্যে শহিদ হয়েছেন অন্তত ১৩ জন করোনাযোদ্ধা।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও