প্রতীকী ছবি

হাওড়া: করোনা সতর্কতা হিসাবে হাওড়ার বালি থেকে শুরু করে ঘুসুড়ি সর্বত্রই জীবাণুমুক্ত করা হল। করোনা সতর্কতা হিসাবে স্যানিটাইজেশন করা হল হাওড়ার বালি বাজারে। এছাড়াও অফিস, হাসপাতালেও জীবাণুমুক্ত করার কাজ হল।

ওই সকল এলাকায় প্রতিদিন বিভিন্ন জায়গা থেকে মানুষ আসেন। তাই সেখান থেকে যাতে না করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে তারজন্যই এই ব্যবস্থা করা হয় বালি দমকলের তরফ থেকে।

শনিবার সকাল থেকেই ওইসব এলাকায় এই স্যানিটাইজেশনের কাজ হয়। বহু মানুষ হাসপাতালে প্রতিদিন আসেন। বালিতে বাজারেও প্রতিদিন ক্রেতা-বিক্রেতার ভিড় দেখা যায়। তাই যাতে না কোনওভাবে করোনা সংক্রমণ সেখানে ছড়িয়ে পড়ে তারজন্য সর্তকতা হিসেবে এই স্যানিটাইজেশনের কাজ করা হয়।

দমকল সূত্রে জানা গেছে, এই কাজ আগামী কয়েক দিন ধরে চলবে করোনা সর্তকতা হিসেবে। পাশাপাশি, এদিন বালির ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের স্থানীয় নেতা ভাস্কর গোপাল চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বিভিন্ন এলাকায় স্যানিটাইজেশনের কাজ হয়। রাস্তাঘাট, দোকানপাট থেকে শুরু করে বিভিন্ন বড় ফ্ল্যাটের সাত ফুট এলাকা পর্যন্ত স্যানিটাইজেশনের কাজ হয়।

ভাস্করবাবু বলেন, রাজ্য সরকার ইতিমধ্যেই বিভিন্ন কাজ করছে। তার পাশাপাশি মন্ত্রী অরূপ রাযয়ের নেতৃত্বে হাওড়া জেলাতে করোনা সতর্কতা হিসাবে বিভিন্ন কাজ হচ্ছে। আমরা তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরাও বিভিন্ন এলাকায় এই কাজে নেমেছি। আপদকালীন এই সময়ে শহরকে করোনামুক্ত করতে আমরা সকলেই কাজে নেমেছি। স্যানিটাইজেশনের কাজ করছি। মানুষকে সচেতন করছি।