দুবাই: আচরণবিধি লঙ্ঘন করে নির্বাসিত শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য সনথ জয়সূর্য৷ শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন বাঁ-হাতি ওপেনার ও নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যানকে দু’বছরের জন্য নির্বাসন করেছে আইসিসি৷ এই সময়ের ব্যবধানে ক্রিকেটের সঙ্গে সম্পর্কিত কোনও ধরনের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন না দ্বীপরাষ্ট্রের প্রাক্তন বিস্ফোরক ওপেনার৷

জয়সূর্য’র বিরুদ্ধে প্রধান অভিযোগ আইসিসি’র দুনীর্তদমন শাখার সঙ্গে অসহযোগিতা৷ শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট নিয়ে আইসিসি’র দুনীর্তি দমন শাখার তদন্তকালে বোর্ডের নির্বাচক কমিটির প্রধান ছিলেন জয়সূর্য৷ তদন্তের কারণে লঙ্কান প্রাক্তন ক্রিকেটারকে বারবার অনুরোধ জানানো হলেও প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করেননি বলে অভিযোগ৷ সেকারণেই এবার শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপজয়ী এই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে তাঁকে নির্বাসিত করল আইসিসি৷

জয়সূর্য’র বিরুদ্ধে আইসিসি’র দুর্নীতি দমন আইনের ২.৪.৬ ধারায় তদন্তে অসহযোগিতা, ২.৪.৭ ধারায় তদন্তে বাধা দান ও তথ্য প্রমাণ লোপাটের অভিযোগ আনা হয়েছে৷ গত বছর অক্টোবরে অবশ্য আইসিসি’র আইন ভাঙা নিয়ে আগেই জয়সূর্যকে সতর্ক করেছিল ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা৷ এমন কী তদন্তের স্বার্থে তাঁর মোবাইল ফোনগুলি দুর্নীতি দমন শাখা চেয়ে পাঠালেও প্রমাণ লোপাটের চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ৷ প্রাক্তন এই ক্রিকেটার তার দুটি মোবাইলের মধ্য একটি মোবাইল নষ্ট হয়ে যাওয়ার কথা জানান, পরে অন্য মোবাইলের সিম নষ্ট হয়ে গিয়েছে বলে তদন্তকে বিপথে চালিত করার চেষ্ট করেন বলে অভিযোগ৷ উল্লেখ্য ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে জিম্বাবোয়ের ওয়ান ডে সিরিজ জয়ের পরই তদন্ত শুরু করে আইসিসি৷ সেসময় শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন জয়সূর্য৷

উল্লেখ্য শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট ইতিহাসে জয়সূর্য এক কিংবদন্তি ক্রিকেটার৷ দেশের জার্সিতে ২২ বছরের ক্রিকেট কেরিয়ারে একশোর বেশি টেস্ট খেলেছেন বাঁ-হাতি তারকা৷ ১১০ টেস্টে সনথের নামের পাশে রয়েছে ৬ হাজারের বেশি রান৷ ৪৪৫ ওয়ান ডে ম্যাচে প্রাক্তন লঙ্কান ক্রিকেটার ১৩ হাজারের বেশি রান হাঁকিয়েছেন তিনি৷