মোবাইলের বাজারে অন্যান্য জনপ্রিয় ব্র্যান্ড গুলির মধ্যে অন্য়তম হল স্যামসং। যদিও ইতিমধ্যে কেবল ফোনই নয় অন্যান্য পরিষেবার দিকেও ক্রমেই নিজেদের বিস্তার করছে এই ব্র্যান্ড। আর সেই কারণে মনে করা হচ্ছে মূলত apple এর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করার জন্যই তাদের তরফে শুরু করা হয়েছে এই পদক্ষেপ।

এবারে ভারতের বাজারে এল নতুন স্মার্ট ফোন samsung galaxy f62। কিছুদিন আগে ভার্চুয়াল ইভেন্টের মাধ্যমে এই ফোন লঞ্চ করা হয়। এই ভাইরচুয়াল ইভেন্ট টেলিকাস্ট হয় স্যামসং এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে। লঞ্চের সঙ্গে সঙ্গেই এই ফোন দেখা গিয়েছে ফ্লিপ কার্ট, অ্য়ামাজনের মতো ওয়েবসাইটে। এক ঝলক দেখে বোঝা গিয়েছে এই ফোনে রয়েছে স্মার্ট লুক। আর তার কারণেই ক্রেতাদের কাছে এই ফোন বিশেষ আকর্ষণের বিষয় হবে বলে মনে করা হচ্ছে। জানা গিয়েছে এই ফোনের ক্যামেরাতে রয়েছে চারটি সেন্সরের সুবিধাও। এছাড়াও এই ফোনে রয়েছে led ফ্ল্যাশ। পাশপাশি ফোনের সামনেও রয়েছে উন্নত ক্যামেরার। সেলফি তোলার ক্ষেত্রে অত্যন্ত উপযোগী এই ফোন।

ইতিমধ্যে স্যামসং এর তরফে জানানো হয়েছে এই ফোনে থাকবেছে ৭০০০ mah ব্যাটারির সুবিধা। এছাড়াও জানানো হয়েছে এই ফোনে থাকবে exynos 9825 প্রসেসর। ফলে ফোন হ্যাং করে যাওয়ার যে বিষয়টি মাঝেমধ্যেই অনেক ফোনের ক্ষেত্রে দেখা যায় এখানে সেটি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। এছাড়া জানানো হয়েছে এই ফোনে থাকবে samoled ডিসপ্লের সুবিধা। এছাড়াও এই ফোনে থাকবে ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা।

জানানো হয়েছে ক্রেতাদের কথা ভেবেই আনা হয়েছে এই ফোন। যার ফলে এই ফোনের দাম হবে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকার মধ্যেই। galaxy f62 হল স্যামসং এর f সিরিজের দ্বিতীয় ফোন। এর আগের ফোন ক্রেতাদের কাছে যথেষ্ট সমাদৃত হয়েছিল। আর তার জেরেই ক্রেতাদের কাছে এই ফোন নিয়ে আসা হয়েছে স্যামসংয়ের তরফে। মনে করা হচ্ছে এর ফলে সুবিধা হবে সকলের।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।