অন্যতম জনপ্রিয় ফোন প্রস্তুত কারক সংস্থা Samsung ভারতে ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ে লঞ্চ করতে চলেছে Samsung Galaxy A22 স্মার্টফোনটি। ভারতে এই স্মার্ট ফোন প্রকাশের বিষয়ে ব্যুরো অফ ইন্ডিয়া স্ট্যান্ডার্ড ওয়েবসাইট এবং HTML5 একটি তালিকা প্রকাশ করে জানিয়েছে। বিআইএস-এর তালিকা থেকে জানা যাচ্ছে ভারতে খুব শীঘ্রই প্রকাশ করা হবে আসন্ন Samsung Galaxy A22 স্মার্টফোনটি। বেশ কিছুদিন আগে এই স্মার্টফোনের ক্যামেরার বৈশিষ্ট্যটি একটি অনলাইন মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছিল, যেখানে দেখা মিলেছে এটিতে থাকবে একটি ১৩ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা এবং রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ।

MySmartPrice প্রতিবেদনে Samsung Galaxy A22 স্মার্টফোনের একটি মডেল নম্বর প্রকাশ করেছে যা SM-A225F। অন্যদিকে HTML5 পরীক্ষায় তালিকাটি পরামর্শ দেয় যে স্মার্টফোনটি চালনা করার জন্য থাকবে Android 11 এর ব্যবস্থা। আগের মডেলগুলির মতো এই স্মার্ট ফোনে থাকবে 4G সংযোগ। তবে সম্প্রতি একটি রিপোর্টে দেখা মিলেছে 4G পাশাপাশি Samsung Galaxy 4G A22 স্মার্টফোন 5G সংযোগ সমর্থণ যোগ্য হবে। 4G এবং 5G উভয় বিকল্প নিয়ে স্মার্টফোনটি ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময় প্রকাশ করা হবে ভারতের বাজারে।

এছাড়াও মনে করা হচ্ছে Samsung Galaxy A22 তে গ্রাহকদের মিলতে পারে একটি quad rear ক্যামেরা সেটআপ যার মধ্যে যুক্ত থাকবে একটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা, ৮ মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি ক্যামেরা এবং দুটি ২ মেগাপিক্সেলের সেন্সার। এছাড়াও সেলফি এবং ভালো ভিডিও কলের জন্য মিলবে ১৩ মেগাপিক্সেলের একটি সেলফি ক্যামেরা। পূর্বে প্রকাশিত Galaxy A21s স্মার্টফোনটির সঙ্গে Samsung Galaxy A22 ক্যামেরা বৈশিষ্ট্যগুলি একেবারে অনুরূপ রয়েছে।

একটি প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করে বলা হয়েছে Samsung Galaxy A22 এর ক্যামেরা সম্পাদন করেছে কয়াশিয়া এবং স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স মেকানিক, যারা এর আগেও Samsung Galaxy A72 এবং Galaxy A52 মডেলের জন্য ক্যামেরা মডেলগুলি তৈরি করেছিল। স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স কেবলমাত্র Galaxy Note এবং Galaxy S সিরিজের ফোন গুলির জন্য ক্যামেরা মডেল সরবরাহ করে থাকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.