অন্যতম জনপ্রিয় ফোন প্রস্তুত কারক সংস্থা Samsung ভারতে ২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ে লঞ্চ করতে চলেছে Samsung Galaxy A22 5G স্মার্টফোনটি। বেশ কিছুদিন আগে ভারতে এই স্মার্ট ফোন প্রকাশের বিষয় ব্যুরো অফ ইন্ডিয়া স্ট্যান্ডার্ড ওয়েবসাইট এবং HTML5 একটি তালিকা প্রকাশ করে জানিয়েছে। বিআইএস-এর তালিকা থেকে জানা গেছিল ভারতে খুব শীঘ্রই প্রকাশ করা হবে আসন্ন Samsung Galaxy A22 5G স্মার্টফোনটি।

তবে সম্প্রতি এই স্মার্টফোনে কী পরিমাণ ওয়াট এর দ্রুত চার্জিংয়ের ব্যবস্থা থাকবে তা উল্লেখ করা হয়েছে। টিইউভি রাইনল্যান্ডের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে আসন্ন Samsung Galaxy A22 5G তে রাখা হবে ১৫ ওয়াট দ্রুত চার্জিংয়ের পরিষেবা। বাজারে সংস্থার ফোনটি ৪ জি এবং ৫ জি উভয় বিকল্পে মিলবে গ্রাহকদের। এর পাশাপাশি দক্ষিণ কোরিয়ার সংস্থাটি Galaxy A22 5G এর ভিত্তিতে Galaxy F22 লঞ্চ করার পরামর্শও দিয়েছে।

টিপস্টার সুধাংশু অম্বোর টিইউভি রাইনল্যান্ডের শংসাপত্র সাইটে প্রকাশ পাওয়া তথ্যটির একটি ছবি স্ক্রিনশট নিয়ে নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে প্রকাশ করেছে। টিপস্টারের দেওয়া স্ক্রিনশটে SM-A226B নামের একটি মডেল নম্বর উল্লেখ করা হয়েছে, যা সংস্থার Galaxy A22 5G স্মার্টফোন বলে মনে করা হচ্ছে। আর এই টুইট ঘিরে Galaxy A22 5G ভারতে আত্মপ্রকাশের জল্পনা শুরু হয়েছে। স্ক্রিনশটটি দেখায় যে ফোনটি 9V, 1.67A ইনপুট সমর্থন করে, এবং এর চার্জিং এর গতিবেগ ১৫ ওয়াট।

২০২১ সালের মাঝামাঝি সময়ে প্রকাশ করা হতে পারে Samsung Galaxy A22 5G স্মার্টফোনটি, যার দাম রাখা হতে পারে KRW 2,00,000, অর্থাৎ ভারতীয় মূল্যে ১৩,১০০ টাকা। পাশাপাশি আশাকরা হচ্ছে Light Green এবং White shades রঙের ওপর মিলতে পারে সংস্থার তরফে অফারও।

গিগবেঞ্চের একটি তালিকা থেকে জানা গেছে, সংস্থার আসন্ন স্মার্টফোনে মিলবে একটি MediaTek Dimensity 700 SoC এবং ৬ জিবি র‍্যাম। এর পাশাপাশি থাকবে Android 11 এর ব্যবস্থাও। ৬.৫ ইঞ্চি ইনফিনিটি ফ্রী নচ ডিসপ্লে সঙ্গে 167.2 x 76.4 x 8.7mm পরিমাপে পাওয়া যাবে Samsung Galaxy A22 5G স্মার্টফোন। এছাড়াও উল্লেখ করা হয়েছে স্মার্টফোনে থাকবে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ এর ব্যবস্থা। এই সেটাপে যুক্ত থাকবে একটি 48-megapixel primary rear ক্যামেরা, 8-megapixel secondary সেন্সার এবং একটি দুটি 2-megapixel সেন্সার। সেলফি এবং ভিডিও কলের জন্য মিলতে পারে একটি 13-megapixel সেলফি ক্যামেরা। অন্যদিকে সংযোগের জন্য মিলবে ৩.৫ মিমি অডিও জ্যাক, টাইপ সি পোর্ট এবং সুরক্ষার জন্য একটি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের ব্যবস্থা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.